রাজ্য

রাজ্যে একলাফে অনেকটা কমল দৈনিক সংক্রমণ, ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭৩৪ জন

প্রাণঘাতী করোনার করাল থাবা থেকে ক্রমশই মুক্ত হচ্ছে বাংলা। রাজ্যে মারণ ভাইরাসকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৫ লক্ষের বেশি আক্রান্ত। সুস্থতার হার যেমন আশার আলো দেখাচ্ছে, তেমনই দৈনিক সংক্রমণেও স্বস্তি মিলেছে। দীর্ঘদিন বাদে দৈনিক সংক্রমণ ছয়শোর গণ্ডির নিচে নামল।

একদিনে নতুন করে মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৭৫ জন। আগের দিনের তুলনায় ১২৬ জন কম আক্রান্ত হয়েছেন। দৈনিক মৃত্যুও অনেকটা স্বস্তি দিয়েছে। দৈনিক সংক্রমণের পাশাপাশি দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যাও হ্রাস পেয়েছে। করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেন ১২ জন।

সোমবার সন্ধ্যায় রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে দৈনিক করোনা বুলেটিনে জানানো হয়েছে, ‘গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যের ১৩১ টি ল্যাবরেটরিতে নতুন করে আরও ৩৩ হাজার ২১৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। নয়া নমুনা পরীক্ষায় ৫৭৫ জনের শরীরে মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে রাজ্যে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৫ লক্ষ ২৯ হাজার ২৯৬ জনে।

নয়া নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার অর্থা‍ত্‍ পজিটিভিটি রেট ১ দশমিক ৭৩ শতাংশ। দৈনিক সংক্রমণের পাশাপাশি দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যাও হ্রাস পেয়েছে। মারণ ভাইরাসের ছোবলে মৃত্যুমিছিলে সামিল হয়েছেন ১২ জন। যার ফলে রাজ্যে এদিন সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টা পর্যন্ত করোনার বলি হলেন ১৮ হাজার ১৬১ জন।’

রাজ্যে করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হওয়ার সংখ্যা আশার আলো জাগাচ্ছে। প্রাণঘাতী ভাইরাসের করাল থাবা থেকে মুক্তির পথে আরও এক ধাপ এগিয়েছে বাংলা। স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ‘গত ২৪ ঘন্টায় মারণ ভাইরাসকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭৩৪ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ হলেন ১৫ লক্ষ ৩৩১ জন। সুস্থতার হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৮ দশমিক ১১ শতাংশে। একদিনে অ্যাকটিভ কেসের সংখ্যা কমেছে ১৩১টি। যার ফলে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ৮০৩ জনে।’

রাজ্যে সংক্রমণের শীর্ষে থাকা উত্তর ২৪ পরগনায় পরিস্থিতির আরও খানিকটা উন্নতি হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় ওই জেলায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৯ জন। আর করোনায় আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। কলকাতায় সংক্রমিত হয়েছেন ৬১ জন। মহানগরীতেও মারণ ভাইরাসের ছোবলে প্রাণ ঝরেছে একজনের। দক্ষিণ ২৪ পরগনায় দুই জন ও নদিয়ায় তিনজন মারণ ভাইরাসের বলি হয়েছেন।

সূত্র : এই মুহুর্তে

আরও পড়ুন ::

Back to top button