রাজ্য

রাজ্যে করোনায় মৃত্যুর হার সামান্য ঊর্ধ্বমুখী, নিম্নমুখী সংক্রমণ

Coronavirus in west bengal : রাজ্যে করোনায় মৃত্যুর হার সামান্য ঊর্ধ্বমুখী, নিম্নমুখী সংক্রমণ - West Bengal News 24

রাজ্যে করোনার দৈনিক সংক্রমণের রেখচিত্র ফের নিম্নমুখী। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮১২ জন। তবে উদ্বেগ বাড়ছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলা নিয়ে। বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া জেলায় আগের দিনের তুলনায় দৈনিক সংক্রমণ সামান্য হ্রাস পেলেও ফের একশোর গণ্ডি ছাড়িয়েছে। নতুন করে আরও ১১৪ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। রাজ্যে একদিনে নতুন করে প্রাণ হারিয়েছেন ১৩ জন। শনাক্তের হার অর্থা‍ত্‍ পজিটিভিটি রেট আগের দিনের তুলনায় সামান্য বেড়েছে।

কড়া বিধিনিষেধের ফলে রাজ্যে করোনার বেলাগাম সংক্রমণ অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে। দৈনিক সংক্রমণ ২১ হাজারের গণ্ডি থেকে হাজারের নিচে নেমে এসেছে। তবে গত কয়েকদিন ধরে দৈনিক সংক্রমণ লুকোচুরি খেলায় মেতে উঠেছে। একদিন সংক্রমণ নিম্নমুখী তো পরের দিনেই ঊর্ধ্বমুখী। ফলে কিছুটা হলেও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা উদ্বিগ্ন। তবে সুস্থতা ও পজিটিভিটির হার অবশ্যই স্বস্তি দিচ্ছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে দৈনিক করোনা বুলেটিনে জানানো হয়েছে, ‘গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরও ৪৮ হাজার ৮৬৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। নয়া নমুনা পরীক্ষায় ৮১২ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। যার ফলে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৫ লক্ষ ৩১ হাজার ৬৬২ জনে। পাশাপাশি একদিনে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৩ জন মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেন। এ নিয়ে রাজ্যে করোনার বলি হলেন ১৮ হাজার ১৯৩ জন।’

স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য অনুযায়ী, ‘গত ২৪ ঘন্টায় মারণ ভাইরাসকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮২৩ জন। যার ফলে রাজ্যে করোনা জয়ীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৫ লক্ষ ২ হাজার ৭৪৮ জন। সুস্থতার হার একই জায়গায় দাঁড়িয়ে অর্থা‍ত্‍ সুস্থতার হার ৯৮ দশমিক ১১ শতাংশ। সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ৭২১ জনে।’

বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া উত্তর ২৪ পরগনার কোভিড পরিস্থিতি অবশ্য রাজ্যের স্বাস্থ্য আধিকারিকদের উদ্বেগে রেখেছে। গত ২৪ ঘন্টায় ওই জেলায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ১১৪ জন। আর প্রাণ হারিয়েছেন একজন। কলকাতা মহানগরীতে নতুন করে আরও ৭৯ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। দার্জিলিংয়ে একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৫ জন।

সুত্র : এই মুহুর্তে

আরও পড়ুন ::

Back to top button