পশ্চিম মেদিনীপুর

‘ল্যাম্প পোস্টে বেঁধে রাখুন’ মন্তব্যের জের, দিলীপ ঘোষ ক্ষমা না চাইলে দল ছাড়ার হুঁশিয়ারি কাউন্সিলরের স্বামীর

‘ল্যাম্প পোস্টে বেঁধে রাখুন’ মন্তব্যের জের, দিলীপ ঘোষ ক্ষমা না চাইলে দল ছাড়ার হুঁশিয়ারি কাউন্সিলরের স্বামীর - West Bengal News 24

বিজেপির মহিলা কাউন্সিলরকে নিয়ে দিলীপ ঘোষের মন্তব্যে ক্ষুব্ধ পশ্চিম মেদিনীপুরের জেলা সহ-সভাপতি সুখবীর সিং অটওয়াল। সম্পর্কে খড়্গপুর ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের স্বামী তিনি। তার প্রতিক্রিয়া, ‘আমার স্ত্রীর কাছে দিলীপ ঘোষকে নিঃশর্তে ক্ষমা চাইতে হবে, যদি ক্ষমা না চান, তাহলে আমরা দলে থাকবো কিনা তা নিয়ে চিন্তাভাবনা করব।’

গত রবিবার খড়্গপুর গ্রামীণ এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি দেখতে যাওয়ার কথা ছিল দিলীপের। তার আগে সকালে তাঁর একসময়ের বিধানসভা এলাকায় অসুস্থ এক বিজেপি কর্মিকে দেখতে যান। খড়্গপুর শহরের ২ নম্বর ওয়ার্ডে ওই অসুস্থ বিজেপি কর্মিকে দেখতে গিয়ে কার্যত বিক্ষোভের মুখে পড়েন তিনি। ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর বিজেপির সুখরাজ কৌর।

স্থানীয়দের অভিযোগ, তিনি কোনও পদক্ষেপ নেননি। এমনকী, এলাকার কোনও উন্নয়নও করেননি। এরপরেই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন দিলীপ। তিনি বলেন, ‘দরকার পড়লে তাঁর বাড়ির সামনে গিয়ে মলত্যাগ করুন। সেখানে বিক্ষোভ দেখান। কাদা ছুঁড়ুন। যাতে তিনি বাড়ি থেকে বের হতে না পারেন। প্রয়োজনে তাঁকে ল্যাম্পপোস্টে ঝুলিয়ে রাখুন।’

কাউন্সিলর স্ত্রীকে ‘কুরুচিকর ভাষা’য় আক্রমণের অভিযোগ তুলে দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন বিজেপির জেলা সহ-সভাপতি সুখবীর সিং অটওয়াল। তিনি নিজেও একসময়ে ওই ওয়ার্ডেরই কাউন্সিলর ছিলেন। সুখবীর সিং অটওয়ালের অভিযোগ, ‘আমাকে বা আমার স্ত্রীকে ডেকে জিজ্ঞেস করতে পারতেন।

বিরোধীদের কথা শুনে দিলীপবাবু আমার স্ত্রীকে ল্য়াম্পপোস্টে বেঁধে রাখতে বলেছেন’। বললেন, ‘এটা বরদাস্ত করব না। আমরা বিজেপি, মহিলাদের সম্মান দিই। রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ হয়ে একজন মহিলার বিরুদ্ধে এত নোংরা কথা ওঁর মুখে শোভা পায় না। আমি চাই, আমার স্ত্রীর কাছে দিলীপবাবু ক্ষমা চান। যদি ক্ষমা না চান, তাহলে আমরা চিন্তাভাবনা করব’।

সূত্র : এই মুহুর্তে

আরও পড়ুন ::

Back to top button