ত্রিপুরারাজনীতি

ত্রিপুরায় কংগ্রেস সভাপতির ইস্তফা, তৃণমূলে যোগদানের জল্পনা

পদত্যাগ করলেন ত্রিপুরা প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির কার্যকরী সভাপতি পীযূষকান্তি বিশ্বাস। শনিবার টুইটারে নিজের ইস্তফার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছেন পীযূষবাবু। ত্রিপুরার রাজনৈতিক মহলে জল্পনা, সুস্মিতা দেবের হাত ধরে তিনিও তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করতে পারেন।

পেশায় আইনজীবী পীযূষবাবু দীর্ঘদিন ধরে কংগ্রেসের সঙ্গে যুক্ত। সুদীপ রায়বর্মণ কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূল হয়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকেই সেরাজ্যে কংগ্রেসের শক্তিক্ষয় শুরু হয়েছে। মাঝখানে প্রদ্যোত মাণিক্য দেববর্মার হাত ধরে কংগ্রেস শক্তিশালী হয়ে উঠছিল। কিন্তু তাঁর দলত্যাগের পর আবার তথৈবচ অবস্থা কংগ্রেস শিবিরের।

আরো পড়ুন : আবারও বিক্ষোভের মুখে দিলীপ ঘোষ, উত্তরবঙ্গে উড়ল কালো পতাকা

কঠিন সময়েও দলের হাল ধরেছিলেন পীযূষবাবু। কিন্তু সম্প্রতি রাজ্যে তৃণমূলের উত্থানের ফলে কংগ্রেসের যে সামান্য শক্তি ছিল, সেটাও এখন ক্ষয়িষ্ণু। একে একে নেতাকর্মীরা যোগ দিচ্ছেন তৃণমূলে। দিন কয়েক আগেই ত্রিপুরায় তৃণমূল নেতাদের উপর বিজেপির আক্রমণকে বর্বর বলে তোপ দাগেন পীযূষবাবু।

সেই পীযূষকান্তি বিশ্বাস এবার নিজেই তৃণমূলে যোগ দিতে পারেন বলে জল্পনা শুরু হয়েছে। শনিবার এক টুইটে তিনি কংগ্রেস কর্মীদের এতদিনের সমর্থনের জন্য ধন্যবাদ জানান। এবং ত্রিপুরা প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির কার্যকরী সভাপতির পদ থেকে ইস্তফার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন। সবচেয়ে তাত্‍পর্যপূর্ণ তাঁর টুইটের জবাব দিয়েছেন সদ্য কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়া সুস্মিতা দেব।

পীযূষবাবুকে তাঁর ভবিষ্যতের জন্য শুভেচ্ছা জানিয়েছেন শিলচরের প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ। সুস্মিতার বক্তব্য, ‘‌আপনি কঠিন সময়ে কাজ করেছেন। ভবিষ্যতের জন্য শুভেচ্ছা।’‌ সুস্মিতার এই টুইটই পীযূষকান্তি বিশ্বাসের তৃণমূলে যোগের জল্পনা বাড়িয়েছে। যদিও ত্রিপুরা প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির সদ্য প্রাক্তন সভাপতির দাবি, তিনি রাজনীতি থেকে অবসর নিচ্ছেন।

সূত্র : আজকাল

আরও পড়ুন ::

Back to top button