জাতীয়

জেলে বসে অমিত শাহের নামে ফোন! ২০০ কোটি টাকার অমিত-জালিয়াতি

বোঝো কাণ্ড!‌ তিহার জেলে বসে ফোনে কথা বলে এক মহিলাকে প্রতারণা করে ২০০ কোটি টাকা মূল্যের সম্পত্তি হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সুকেশ চন্দ্রশেখর নামে এক তোলাবাজের বিরুদ্ধে। একটি নামজাদা ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থার প্রাক্তন মালিক শিবিন্দর সিংয়ের স্ত্রীর থেকে তাঁর স্বামীর জামিন পাইয়ে দেওয়ার নাম করে ওই টাকা তোলে চন্দ্রশেখর। দুর্নীতির অভিযোগে ২০১৯ সাল থেকে জেলে রয়েছে শিবিন্দর ও তার ভাই মালবিন্দর।

পুলিশের কথায়, কখনও প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর, আবার কখনও বা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক, আবার কখনও আইন মন্ত্রক থেকে ফোন করছে বলে বিভিন্ন মন্ত্রীদের নাম নিয়ে কথা বলত চন্দ্রশেখর। শিবিন্দর সিংয়ের স্ত্রী অদিতি গত ১১ মাস ধরে ১০টি কিস্তিতে চন্দ্রশেখরকে ২০০ কোটি টাকা দিয়েছেন। অদিতি সিংয়ের অভিযোগ, ‘‌ওরা ভয় দেখাত, হুমকি দিত। তাই টাকা, গয়না, গচ্ছিত সম্পত্তি মিলিয়ে ওদের ২০০ কোটি টাকা দিতে বাধ্য হই। আমার সন্তানরা বিদেশে থাকে। ওদের নাম করেও ভয় দেখাত।’

আরো পড়ুন : আবারও পাক সীমান্ত দিয়ে ভারতে জঙ্গি অনুপ্রবেশ চেষ্টা ব্যর্থ করলে সেনা

অদিতি জানিয়েছেন, এক সময়ে তিনি খেয়াল করেন ফোনে যারা কথা বলছে, তাদের প্রত্যেকের কথায় দক্ষিণ ভারতীয় টান। তখনই টনক নড়ে তাঁর। দ্রুত পুলিশে বিষয়টি জানান এবং জালিয়াতি ফাঁস হয়।

পুলিশ জানতে পেরেছে, অদিতির থেকে নেওয়া টাকায় চেন্নাইয়ে সমুদ্রের ধারে একটি বিলাসবহুল বাংলো কেনে চন্দ্রশেখর ও তার সঙ্গী অভিনেত্রী লিনা ম্যারি পল। এ ছাড়াও একাধিক বহুমূল্য গাড়ি, আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের ঘড়ি, ব্যাগ, জুতো, পোশাক উদ্ধার হয়েছে। দিল্লি পুলিশ জানতে পেরেছে, সারা দেশে ওই দু’জনের বিরুদ্ধে ২৩টি প্রতারণার মামলা রয়েছে।

সূত্র: আজকাল

আরও পড়ুন ::

Back to top button