ত্রিপুরা

‘তথ্য প্রমাণ সহ গ্রেপ্তার করাবো’, গরু পাচার ইস্যুতে TMC-কে হুমকি ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর

নাম না করে তৃণমূল নেতাদের কার্যকলাপ নিয়ে হুঁশিয়ারি ত্রিপুরার (tripura) মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের (biplab deb)। সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট করে তিনি বলেছেন, বিভিন্ন অসামাজিক কাজে লিপ্ত ওই দলের নেতারা। পাশাপাশি তিনি দলের নেতাদের বলেছেন, বিরোধী সিপিএম (cpim) সমর্থকদের বাড়িতে গিয়ে প্রচার করার জন্য।

২০১৫-তে দায়িত্ব নিয়ে ২০১৮-তে মুখ্যমন্ত্রী

সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে বিপ্লব দেব বলেছেন, তিনি ২০১৫ সালে ত্রিপুরায় দায়িত্ব নিয়ে আসেন এবং ২০১৭ সালেই বড়জলা উপনির্বাচনে দলের সাংগঠনিক কাজে ঝাঁপিয়ে পড়েন। তখন এই বড়জলার প্রত্যেকের বাড়িতে তিনি গিয়েছেন। বড়জলার প্রত্যেকে তাঁকে চেনেন আর তিনিও তাঁদেরকে চেনে। পরে ২০১৮-তে মুখ্যমন্ত্রী হন বিপ্লব দেব।

আরো পড়ুন : চীনকে ‘টেক্কা’ দিতে শুক্রবার আসছে ভারতের প্রথম পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্র চিহ্নিতকারী জাহাজ

তৃণমূলকে হুঁশিয়ারি

সঙ্গে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, এখন দেখা যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ থেকে একটি দল তাঁদের রাজ্যে এসেছে। এ দলের নেতৃত্বরা পশ্চিমবঙ্গে গরু পাচারের মতো অসামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত। এখানেও যাঁদের দলে টানছে তাঁরাও এ ধরনের অসামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত। আর তাঁর কাছে তথ্য প্রমাণ রয়েছে যার ভিত্তিতে তাঁদের তিনি গ্রেপ্তার করাবেন।

সিপিএম সমর্থকদের বাড়িতে যাওয়ার নির্দেশ

দলের মেতা-কর্মীদেরর উদ্দেশ্যে বিপ্লব দেব বলেছেন, প্রত্যেক বিরোধী সিপিএম-এর সমর্থকদের বাড়িতে যাওয়ার জন্য। তাঁদের কাছে গিয়ে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের খতিয়ান তুলে ধরার নির্দেশ দিয়েছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী। তাঁদের বোঝাতে হবে, ২৫ বছরের সরকার কি করেছে আর তাঁর গত সাড়ে তিন বছরে কী করেছে ও করছে।

তৃণমূল সক্রিয় হতেই ভাঙন বিজেপিতে

জুলাই থেকে তৃণমূল ত্রিপুরায় সক্রিয় হতে শুরু করেছে। পশ্চিমবঙ্গের বেশ কয়েকজন মন্ত্রী এবং তৃণমূলে পদাধিকারীরা বারে বারে সেখানে গিয়েছে এবং যাচ্ছেন। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও সেখানে গিয়েছে দুবার। তৃণমূল সক্রিয় হতেই, সেখানে বিভিন্ন দল ভেঙে তাদের দলে যোগ দিচ্ছে বলে দাবি ঘাসফুল শিবিরের। এর মধ্যে বিজেপি থেকে যোগ দেওয়া লোকজনের সংখ্যাই বেশি। ইতিমধ্যেই সেখানে বিজেপির অন্যতম প্রভাবশালী নেতা সুদীপ রায় বর্মনের সঙ্গে বিপ্লব দেবের ফাটল চওড়া হয়েছে।

আরো পড়ুন : আফগানিস্তানের খবর প্রকাশ না করার নির্দেশ কাশ্মীরে

সম্প্রতি ত্রিপুরায় মন্ত্রিসভায় সম্প্রসারণ সম্পন্ন হলেও, বিপ্লব দেবেই আস্থা রেখেছে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। ফলে আগামী দিনে সেখানে বিজেপিতে বড় ভাঙন অপেক্ষা করছে বলেই মত রাজনৈতিক মহলের। সেক্ষেত্রে হুঁশিয়ারি দিয়ে বিপ্লব দেবের সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট যথেষ্টই তাত্‍পর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। সেক্ষেত্রে দিন কয়েকের মধ্যেই সেখানে তৃণমূল কর্মীদের গ্রেফতারও শুরু হয়ে যেতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে।

সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া

আরও পড়ুন ::

Back to top button