মুর্শিদাবাদ

ভোটের দিন ঘোষণার পরেই জঙ্গিপুরে বিজেপি, কংগ্রেস ছেড়ে সব তৃণমূলে

মুর্শিদাবাদের জঙ্গিপুর বিধানসভা কেন্দ্রে আসন্ন নির্বাচনের আগে বুধবার জোর ধাক্কা খেল কংগ্রেস এবং বিজেপি। জঙ্গিপুর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী জাকির হোসেন এবং জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র গৌতম ঘোষের হাত ধরে মঙ্গলবার প্রায় ৭০০ কংগ্রেস এবং বিজেপি কর্মী তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করলেন। বুধবার এই যোগদানের ফলে আসন্ন নির্বাচনের আগে জোট প্রার্থী এবং বিজেপি প্রার্থী বড়সড় ধাক্কা খেল বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা জঙ্গিপুর কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী জাকির হোসেন বলেন, ‘আগামী দিন দেশে আর বিজেপি নামক কোনও রাজনৈতিক দল থাকবে না। তারা দেশের সমস্ত সম্পদ যেমন রেল, এলআইসি প্রভৃতি বিক্রি করে দিচ্ছে। এর পাশাপাশি সাধারণ মানুষের অসুবিধা বাড়িয়ে ডিজেল, পেট্রোলের রোজ মূল্যবৃদ্ধি হচ্ছে। অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম আকাশছোঁয়া।’

তিনি আরও বলেন, ‘রাজ্যের মানুষ মুখ্যমন্ত্রীর উন্নয়নমূলক প্রকল্পগুলির সুবিধা পেয়েছেন। তাই তারা তৃণমূলকে ভোট দেবেন। বিজেপিকে কেউ পছন্দ করে না। বিজেপি প্রার্থী বা বিজেপি দলের কর্মীদের শুধু ভোটের সময় গ্রামে ঘুরতে দেখতে পাওয়া যায়। আমি সারা বছর মানুষের সুখে দুঃখে তাদের পাশে থাকি। আমার জনতার দরবারে এসে কেউ ফিরে যায় না।’

আরো পড়ুন : মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার”, বছরে কত হাজার কোটি খরচ জানেন?

জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র গৌতম ঘোষ বলেন, ‘সারা ভারতে বিজেপি এই মুহূর্তে খুবই খারাপ জায়গায় রয়েছে। অভিষেক ব্যানার্জি এবং আমাদের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্বে তৃণমূল কংগ্রেস দেশে নতুন শক্তি রূপে উঠে এসেছে । কোভিড পরিস্থিতি এবং নির্বাচনী বিধিনিষেধ লাগু থাকার কারণে বড় জমায়েতে নিষেধাজ্ঞা থাকায় আজ অল্প কিছু বিজেপি এবং কংগ্রেস কর্মী একসঙ্গে তৃণমূলে যোগদান করলেন।

আগামী কিছু দিনের মধ্যে আরও বেশ কিছু পঞ্চায়েত এলাকা থেকে বিরোধী দলের কর্মী সমর্থকরা তৃণমূলে যোগদান করবেন। আমরা নিশ্চিত জঙ্গিপুর কেন্দ্র থেকে জাকির হোসেন রেকর্ড ভোটে এবার জিতবেন।’

সূত্র: আজকাল

আরও পড়ুন ::

Back to top button