রাজ্য

প্রিয়াঙ্কাকে আশীর্বাদ তথাগতর, প্রচার শুরু কালীঘাট থেকে

প্রিয়াঙ্কাকে আশীর্বাদ তথাগতর, প্রচার শুরু কালীঘাট থেকে - West Bengal News 24

হাতে সময় কম। ভবানীপুর উপনির্বাচনের (By-Election) লড়াই জমে উঠেছে। ‘ঘরের মেয়ে’র হয়ে নতুন স্লোগান বেঁধে আগেই প্রচারে নেমেছে তৃণমূল। এবার বিজেপির প্রার্থী ঘোষণার পর প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়ালের (Priyanka Tibrewal) নামছেন প্রচারে।

আর তার আগে বিজেপির (BJP) প্রবীণ নেতা তথাগত রায়ের বাড়ি গিয়ে তাঁর আশীর্বাদ নিলেন। তাত্‍পর্যপূর্ণভাবে, কালীঘাট (Kalighat) অর্থাত্‍ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির এলাকা থেকে প্রচার শুরু করছেন প্রিয়াঙ্কা। তাঁর নির্বাচনী এজেন্টের দায়িত্ব দেওয়া হতে চলেছে সজল ঘোষকে।

শনিবার সকালে প্রিয়াঙ্কাকে আশীর্বাদ করার পর তথাগত রায় (Tathagata Roy) টুইটে তাঁর প্রশংসা করেছেন। দলীয় নেতৃত্বে বিরুদ্ধে মুখ খুলে তিনি মতপ্রকাশ করেছেন, বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী বাছাই ঠিক হয়নি। তবে ভবানীপুর (Bhabanipur) উপনির্বাচনে প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়ালের নির্বাচন যে সঠিক, দলের এই সিদ্ধান্তের প্রশংসাও করেছেন তথাগত রায়।

আরও পড়ুন : ‘লক্ষাধিক ভোটে জিতবেন মমতা’, এই জয় আটকানোর ক্ষমতা পৃথিবীর কারও নেই : সুব্রত মুখার্জি

পাশাপাশি প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে এর মধ্যেই যে আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে রাজনৈতিক মহলের একাংশে, তা নিয়েও সরব হয়েছেন তথাগত রায়। এ প্রসঙ্গে তিনি ফিরহাদ হাকিমের নাম উল্লেখ করে বাঙালি-অবাঙালি সংক্রান্ত সমালোচনার কড়া জবাব দিয়েছেন।

শুক্রবার প্রার্থী ঘোষণার পর শনিবারই হেস্টিংসে, বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে নির্বাচন সংক্রান্ত বৈঠকে বসেছে নেতৃত্ব। রয়েছেন দিলীপ ঘোষ, সৌমিত্র খাঁ, অর্জুন সিং-সহ দলের শীর্ষ পদস্থরা। ভবানীপুর কেন্দ্রের উপনির্বাচনে পর্যবেক্ষক হিসেবে আগেই অর্জুন সিংয়ের (Arjun Sing) নাম আগেই বেছে নেওয়া হয়েছিল।

এ নিয়ে দলের এই রুদ্ধদ্বার বৈঠকে নেতৃত্বের একাংশ আপত্তি তুলেছে বলে সূত্রের খবর। এদিন সর্বসম্মতিক্রমে প্রিয়াঙ্কার নির্বাচনী এজেন্ট হিসেবে সজল ঘোষের নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। আরও দুজনের নামও উঠেছিল। তবে সজল ঘোষকেই নির্বাচনী এজেন্টের দায়িত্ব দেওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

মাসখানেক আগে সন্তোষ মিত্র স্কোয়ারের পুজো উদ্যোক্তা তথা ক্লাবের সেক্রেটারি সজল ঘোষের বাড়িতে পুলিশের অভিযান নিয়ে সরগরম হয়ে উঠেছিল। এলাকায় অশান্তি বাধানোর অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হয়। তবে আপাতত তিনি জামিনে মুক্ত। নামতে পারেন ভবানীপুরের উপনির্বাচনের কাজে। সবমিলিয়ে, উপনির্বাচনের আগে বিজেপি-তৃণমূলের প্রচার ঘিরে সরগরম হয়ে উঠতে চলেছে ভবানীপুর।

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

আরও পড়ুন ::

Back to top button