কলকাতা

ছুটির দিন সকালে মা উড়ালপুল থেকে ঝাঁপ দিয়ে মৃত্যু এক ব্যবসায়ীর

দিনকয়েক আগেই উত্তরপ্রদেশ সরকারের বিজ্ঞাপনে যে মা ফ্লাইওভারের (Maa Flyover) ছবি ঘিরে তুমুল বিতর্ক দানা বেধেছিল, সেই উড়ালপুলেই এবার ভয়ঙ্কর ঘটনা। ছুটির দিন, রবিবার সাতসকালেই ঘটে গেল সেই হাড়হিম ঘটনা। মা ফ্লাইওভার থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী হলেন এক ব্যক্তি। ব্রিজের উপর রইল ওই ব্যক্তির বাইক ও জুতো। এই ঘটনায় তুমুল চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। স্বাভাবিক কারণেই মা ফ্লাইওভারের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তা বাড়ল পুলিশের (Kolkata Police)।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই ব্যক্তির নাম প্রণব কুণ্ডু। তাঁর বয়স ৫৮ বছর। প্রণববাবু লেকটাউনের শ্রীভূমি এলাকার বাসিন্দা বলে খবর। এদিন সকাল-সকালই পার্কসার্কাসের দিক থেকে বাইক নিয়ে মা ফ্লাইওভারের (Maa Flyover) উপরে ওঠেন তিনি। এরপর সায়েন্স সিটির কাছাকাছি এসে পরমা আইল্যান্ডের কাছে ব্রিজের উপরেই নিজের বাইকটি দাঁড় করান তিনি। আর সেখান থেকেই ঝাঁপ দেন নীচে। ঘটনার পরপরই খবর যায় প্রগতি ময়দান থানায়।

আরও পড়ুন : কেন্দ্রের রেকর্ড টিকাকরণের পরদিনই নজির গড়ল বাংলাও

পুলিশ এসে দেখে ব্রিজের উপরেই রয়েছে প্রণববাবুর বাইক, হেলমেট ও জুতো। আর ব্রিজের নীচে পড়েছিল তাঁর নিথর দেহ। অবশ্য প্রণব বাবুকে নিয়ে তড়িঘড়ি এনআরএস হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিত্‍সকরা। তাঁর পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে পুলিশ জানতে পেরেছে, প্রোমোটিং ব্যবসার সঙ্গে জড়িত ছিলেন প্রণববাবু। ইদানীং মন্দা চলছিল ব্যবসায়। সেই কারণে অবসাদে ভুগছিলেন তিনি। কিন্তু তার পরিণাম যে এমন হবে, তা পরিবারের কেউই ঘুণাক্ষরেও টের পায়নি।

পুলিশ জানিয়েছে, প্রণববাবুর বাইকের নম্বর ছিল WB08M5265। তাঁর ছেলে প্রীতম মণ্ডল জানিয়েছেন, ‘বাবা রিয়েল এস্টেট এজেন্ট ছিলেন। বেশ কয়েক মাস ধরেই বাবার ব্যবসা ভালো চলছিল না। তা নিয়ে অবসাদেও ভুগছিলেন। কিন্তু এই পরিণাম হবে, তা কখনই ভাবিনি।’

প্রসঙ্গত, মা উড়ালপুলে (Maa Flyover) এতদিন একের পর এক বাইক দুর্ঘটনার খবর মিলত। কিন্তু এবার সেই উড়ালপুল থেকেই মারণঝাঁপের ঘটনা ঘটল রবিবার সকালে। পুলিশ সূত্রে খবর, এখনও পর্যন্ত আত্মহত্যা বলেই মনে করা হচ্ছে ওই ঘটনাটি।

সূত্র: নিউজ ১৮

আরও পড়ুন ::

Back to top button