জাতীয়বিচিত্রতা

মেয়ে হয়েছে, আনন্দে বিনামূল্যে ৫০ হাজার টাকার ফুচকা খাওয়ালেন বিক্রেতা

কন্যা সন্তান হওয়ায় খুশিতে আত্মহারা বাবা। সেই আনন্দ ভাগ করে নিতে ৫০ হাজার টাকার ফুচকা খাওয়ালেন সাধারণ মানুষকে। সন্তান জন্মানোর পর অনেকেই খুশিতে মিষ্টিমুখ করান, কিন্তু এই প্রথম কোনও বাবা এত বিপুল টাকার ফুচকা শুধুমাত্র কন্যা সন্তান হওয়ার জন্য খাওয়ালেন।

ভারতবর্ষে এমন একটা দেশ যেখানে প্রায়ই প্রত্যন্ত গ্রাম গুলি থেকে খবর আসে নারী নির্যাতনের কথা। পুত্র সন্তানের থেকে নারী সন্তানদের কিছুটা হলেও অবজ্ঞার চোখে দেখা হয়। সভ্যতা বা দেশ উন্নত হলেও আধুনিকতার ছোঁয়া এখনো পর্যন্ত সর্বত্র সফলভাবে পৌঁছায়নি।

এখনো অনেক স্থান আছে, যেখানে মেয়েদের রান্না বাটি খেলার সময় থেকেই গৃহকর্মের কাজ শেখানো হয়, তারপর তোড়জোড় শুরু হয় বিয়ের। সেখানে মধ্যপ্রদেশের ভোপালের এই ব্যক্তি নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত রাখলেন। মধ্যপ্রদেশের ভোপালে কোলার অঞ্চলে ফুচকা বিক্রি করেন অঞ্চল গুপ্ত।

আরও পড়ুন : স্ত্রী প্রতিদিন স্নান না করায় ডিভোর্স দিলেন স্বামী

মাত্র অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশুনা করেই জীবিকার তাগিদে বেছে নিয়েছিলেন ফুচকা বিক্রিকে। প্রায় কুড়ি বছর ধরে তিনি এই পেশায় রয়েছেন। তার অপর দুই ভাই পেশায় ইঞ্জিনিয়ার। স্ত্রী গ্র্যাজুয়েট, তিনিও স্বপ্ন দেখছেন আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়ার এবং একটি সেলাই স্কুল খোলার।

অঞ্চল গুপ্ত নিজে জানিয়েছেন ” আমি বিয়ের পর থেকেই কন্যা সন্তান চাইতাম, কিন্তু বছর দুয়েক আগে আমাদের এক পুত্র সন্তান হয়” ২০২১ এ কন্যা সন্তান পেয়ে তিনি অত্যন্ত খুশি। তিনি অসংখ্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন স্বয়ং ঈশ্বরকে।। ‘বেটি হ্যায়, কাল হ্যায়’ এই বার্তা দিয়ে ভোপালের সাধারণ মানুষকে প্রায় ৫০ হাজার টাকার ফুচকা খাওয়ান।

বিকেল থেকেই তার স্টলের সামনে প্রচুর ভিড় জমে যায়। রাত বাড়ার সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে সেই ভিড়। প্রচুর মানুষ অঞ্চল গুপ্তাকে শুভেচ্ছা এবং সাধুবাদ জানিয়েছেন। তিনি ফুচকা স্টল দিয়েছিলেন সমস্ত রকম করোনা বিধি মেনেই।

সূত্র: প্রথম কলকাতা

আরও পড়ুন ::

Back to top button