বলিউড

“আমার ছেলে ড্রাগ সেবন করতে পারে”, প্রথম থেকেই সম্মতি ছিল শাহরুখে

শাহরুখ খানের বড় ছেলে আরিয়ানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মাদক মামলায় জড়িয়েছে সে। এই ঘটনায় হতবাক গোটা দেশ। ঘটনাটি ঘটার কিছুক্ষণের মধ্যেই ভাইরাল একটি ইন্টারভিউ ক্লিপ। ছেলে ড্রাগের নেশা করলে বাবা হিসেবে শাহরুখের সম্মতি রয়েছে.. এমন কথাই ক্যামেরার সামনে বলেছিলেন কিং খান। সেই সাক্ষাৎকারে শাহরুখের পাশে বসেছিলেন তাঁর ঘরণী গৌরীও।

২৪ বছর আগে, ১৯৯৭ সালে টেলিভিশনের পর্দায় দেখানো হয়েছিল সেই সাক্ষাৎকার। সত্যজিৎ রায়ের অভিনেত্রী সিমি গারেওয়ালের জনপ্রিয় টক শোতে এসেছিলেন শাহরুখ ও গৌরী। সিমির সেই শোতে স্পষ্টভাবেই বিবৃতি দিয়ে শাহরুখ বলেছিলেন, “আমার ছেলের বয়স এখন ৩ কিংবা ৪। ও কিন্তু মেয়েদের পিছনে দৌড়তে পারে।”

সিমি জিজ্ঞেস করেন, “৩/৪ বছর বয়সেই?” পাশে বসে আরিয়ানের মা গৌরী বলেছিলেন, আরিয়ান তার বাবার খুবই আপন। মায়ের তুলনা সে বাবার বেশি কাছের। বলেছিলেন, “আমার ছেলের ভবিতব্য এটাই, যে ও বড় হয়ে বখে যাবে।”

আরও পড়ুন : অন্তর্বাস-স্যানিটারি ন্যাপকিন থেকে উদ্ধার মাদক! আরিয়ান খান-কাণ্ডে হতবাক গোয়েন্দারা

এখানেই থেমে ছিলেন না শাহরুখ। তিনি ক্যামেরার সামনে বলেছিলেন, “আমার ছেলে যত খুশি ধূমপান করতে পারবে, ড্রাগের নেশা করতে পারবে, যৌন কর্মে লিপ্ত হতে পারবে, মহিলাদের নিয়ে যত খুশি ঘুরতে পারবে…”

ছেলে আরিয়ানের ড্রাগ মামলায় জড়িয়ে পড়া ও তার গ্রেফতারি নিয়ে শাহরুখ এখনও কোনও মন্তব্য করেননি। কিন্তু সিমির শোতে ২৪ বছর আগে সম্প্রচারিত শাহরুখের মন্তব্য ভাইরাল হয়েছে মুহূর্তের মধ্যে।

শনিবার রাতে আরব সাগরের তীরে যে প্রমোদতরণীতে মাদকের খোঁজে তল্লাশি অভিযান চালিয়েছিল নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো, সেখানেই উপস্থিত ছিল শাহরুখ-পুত্র। শনিবারই মুম্বই থেকে ছাড়ার কথা ছিল কর্ডেলিয়া এমপ্রেস শিপের। বলিউড, ফ্যাশন ও বাণিজ্যজগতের সদস্য়দের নিয়ে তিনদিনের মিউজিক্যাল সফরে যাওয়ার কথা ছিল ওই ক্রুজশিপের। কিন্তু জাহাজ ছাড়ার আগেই এন সি বির কাছে গোপন সূত্রে খবর আসে যে, ওই প্রমোদতরণীতে মাদক সেবনও চলবে। এরপরই ছদ্মবেশে হানা দেয় এন সি বির আধিকারিকরা।

আরও পড়ুন : অর্ধেক ফুসফুস নিয়েই অভিনেত্রীর বাঁচার লড়াই

মুম্বইয়ের বন্দর ছাড়ার কিছুক্ষণ পরই তল্লাশি অভিযান শুরু করে এন সি বি। বাজেয়াপ্ত হয় বিপুল পরিমাণ মাদক। গতরাতেই এনসিবির তরফে জানানো হয়েছিল, ওই প্রমোদতরণীতে উপস্থিত সকলকে জেরা করা হচ্ছে। সেই সময় বলিউডের কেউ উপস্থিত রয়েছেন কিনা, প্রশ্ন করা হলে তারা উত্তর দেননি। কিন্তু এ দিন সকালেই জানা যায়, ওই ক্রুজে উপস্থিত ছিলেন শাহরুখ খানের বড় ছেলে আরিয়ান খানও। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের পর বয়ান রেকর্ড করে গ্রেফতার করা হয়।

তবে একা আরিয়ান খান নন, গ্রেফতার হয়েছেন বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তির সন্তানরাও। এরমধ্যে দিল্লির এক বিখ্যাত ব্যবসায়ীর কন্যারাও রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। আরবাজ মারচেন্ট, মুনমুন ধামেচা, নুপুর সারিকা, ইসমাত সিং, মোহাক জয়সওয়াল, বিক্রান্ত ছোকর ও গোমিত চোপড়া নামক আরও ৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের সকলেরই ফোন বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : যোগীর ‘ওডিওপি’ প্রকল্পের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাস্যাডর হলেন কঙ্গনা! উত্তর প্রদেশে নতুন ভূমিকায় অভিনেত্রী

এন সি বি সূত্রে জানা গিয়েছে, আরিয়ানের চশমার বাক্স থেকে মাদক উদ্ধার হওয়ায় তাঁর বিরুদ্ধে মাদক আইনের ৮সি, ২০বি, ২৭ এবং ৩৫ নম্বর ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। জানা গিয়েছে, ওই প্রমোদতরণীতে ধরা পড়ার সময় আরিয়ানের কাছে ১ লাখ ৩৩ হাজার টাকা ও ১৩ গ্রাম কোকেন, ২১ গ্রাম চরস, ২২টি এম ডি এম এ পিলস ছিল।

যদিও আরিয়ানের তরফে তাঁর কৌঁসুলি সতীশ মানশিন্ডের দাবি, ওই প্রমোদতরীর কোনও টিকিট তাঁর কাছে ছিল না। শুধুমাত্র তাঁকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল বলেই তিনি গিয়েছিলেন। শুধুমাত্র হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের ভিত্তিতেই তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আরিয়ানের জামিনের আবেদনও করেছেন তিনি।

সূত্র: টিভি ৯

আরও পড়ুন ::

Back to top button