জাতীয়

১০০ কোটি টিকাকরণ দেশের ইতিহাসে একটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

PM Address to Nation : ১০০ কোটি টিকাকরণ দেশের ইতিহাসে একটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী - West Bengal News 24

টিকাকরণে সেঞ্চুরি করেছে দেশ। ১০০ কোটি টিকাকরণের এই সাফল্যকে দেশবাসীর সঙ্গে ভাগ করে নিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এ দিন জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ রাখতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী ১০০ কোটি টিকাকরণের লক্ষ্যপূরণের জন্য দেশের ১৩০ কোটি জনগণকেই ধন্যবাদ জানালেন।

এ দিনের বক্তব্যের শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী বলেন, “১০০ কোটি টিকাকরণের এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ কারোর একার প্রচেষ্টায় নয়, ১৩০ কোটি জনগণের মিলিত উদ্যোগেই সম্ভব হয়েছে। এই সাফল্য গোটা দেশের, দেশের ১৩০ কোটি জনগণের। এটা কেবল একটি সংখ্যা নয়। এটি এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা, এক নতুন ভারতের সূচনা হল গতকাল। এটা সেই নতুন ভারত, যা নিজেদের সংকল্পকে পূরণ করতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে।”

আরও পড়ুন : সাড়ে ৭ লাখের সোনার কয়েন ফিরিয়ে দিলেন পরিচ্ছন্নকর্মী

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আজ ভারতের টিকাকরণ কর্মসূচিকে গোটা বিশ্বের টিকাকরণ কর্মসূচির সঙ্গে তুলনা করা হচ্ছে। যেভাবে আমাদের দেশে দ্রুতগতিতে ১০০ কোটি করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে, তার প্রশংসাও করা হচ্ছে বিশ্বজুড়ে। কিন্তু এই বিশ্লেষণে একটা কথা অনেক সময়ই ভুলে যাওয়া হয় যে এর সূচনা কোথা থেকে হল। বিশ্বের অধিকাংশ দেশেই দীর্ঘ সময় ধরেই টিকা উৎপাদন, গবেষণা চলছে।

ভারতও এতদিন এই দেশগুলির উপরই নির্ভরশীল ছিল। সেই কারণেই করোনা সংক্রমণ যখন মহামারীর রূপ নিল, তখন ভারতের উপর একাধিক প্রশ্ন উঠেছিল যে ভারত কী এই মহামারীর সঙ্গে লড়তে পারবে? এই বিপুল জনসংখ্যার মানুষের জন্য টিকা কেনার টাকা কোথা থেকে আসবে, ভারত আদৌই করোনা টিকা পাবে কিনা, পেলেও এত সংখ্যক জনগণকে টিকা দিতে পারবে কিনা ইত্যাদি।

আজ ভারত ১০০ কোটি টিকাকরণের মাধ্যমে সেই সমস্ত প্রশ্নের জবাব দিয়েছে। দেশেই টিকা উৎপাদন করা হয়েছে এবং তা দেশবাসীকে বিনামূল্যে দেওয়া হয়েছে।”

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, “১০০ কোটি টিকাকরণের আরও একটি ওষুধ প্রস্তুতির পীঠস্থান হিসাবে ভারত যে স্বীকৃতি পেয়েছে, সেই পরিচয় আরও মজবুত হবে। গোটা বিশ্বই বর্তমানে ভারতের এই শক্তিকে দেখছে এবং উপলব্ধি করছে।” তিনি জানান, ভারতের টিকাকরণ কর্মসূচি সবকা সাথ, সবকা বিকাশ, সবকা প্রয়াসের উপর ভিত্তি করেই পরিচালিত হচ্ছে।

করোনা সংক্রমণের শুরুতে ভারতকে ঘিরে যে নানা সংশয়, প্রশ্ন তৈরি হয়েছিল, সেই বিষয়টি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “করোনা সংক্রমণের শুরুতে বিধিনিষেধ নিয়েও অনেকে নানা প্রশ্ন তুলেছিলেন। ভারতের এই বিপুল সংখ্যক জনগণের উপর কড়া স্বাস্থ্যবিধি আরোপ করা যাবে না, একথাও বলেছিলেন অনেকে। কিন্তু গণতান্ত্রিক দেশ হিসাবে আমরা সকলের চাহিদাকেই প্রাধান্য দিই। সেই কারণই সবকা সাথ, সবকা বিকাশ- এই নীতি অনুসরণ করে চলি আমরা।”

সুত্র : টিভি ৯

আরও পড়ুন ::

Back to top button