জাতীয়

জওয়ানদের পাশে থাকার বার্তা, পুলওয়ামা হামলার সেই ঘটনাস্থলে রাত কাটালেন অমিত শাহ

পুলওয়ামার (pulwama) লেথপোরায় সিআরপিএফ (crpf) ক্যাম্পে রাত কাটালেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit shah)। এই জায়গাতেই ২০১৯-এর ফেব্রুয়ারি গাড়ি বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ৪০ জন আধাসামরিক বাহিনীর জওয়ানকে হত্যা করেছিল জঙ্গিরা। তিনদিনের জম্মু ও কাশ্মীর সফরের সময় কিছুটা বাড়িয়ে তিনি পুলওয়ামার সিআরপিএফ ক্যাম্পে রাত কাটানোর সিদ্ধান্ত নেন বলে জানা গিয়েছে।

জম্মু ও কাশ্মীরের পরিস্থিতির উন্নতি

মোদী সরকার জঙ্গি উত্‍খাতে জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছে। তারই প্রেক্ষিতে সেখানকার পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে বলে দাবি করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তবে যতক্ষণ না পর্যন্ত পুরো শান্তি আসবে ততক্ষণ পর্যন্ত সন্তুষ্টি আনা যাবে না বলেও জানিয়েছেন তিনি।
জম্মু ও কাশ্মীরের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে দাবি করে তিনি বলেছেন, জীবদ্দশাতেই প্রধানমন্ত্রী মোদীর স্বপ্ন, শান্তিপূর্ণ জম্মু ও কাশ্মীর সবার সামনে তুলে ধরার ক্ষেত্রে তারা সফল হবেন।

আরও পড়ুন : উত্তরপ্রদেশে একসঙ্গে ৯টি মেডিক্যাল কলেজের উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, আগে কাশ্মীরে পাথ ছোড়ার ঘটনা প্রায়ই হতো। কিন্তু এখন তা মাঝে মধ্যে হয়। এই ধরনের ঘটনা অনেকটা কমলেও, আত্মতুষ্টি আসলে চলবে না। তিনি বলেছেন, জঙ্গি হামলা হল মানবতা বিরোধী কাজ। মানবতার বিরুদ্ধে যুদ্ধ যারা করছে, তাদের থেকে কাশ্মীরবাসীকে উদ্ধার করতে হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

পরিসংখ্যান দিয়ে তিনি দাবি করেছেন, ২০৪-১৪-র মধ্যে যেখানে প্রতিবছর গড়ে ২০৮ জন সাধারণ মানুষ এবং ১০৫ জন নিরাপত্তারক্ষীর মৃত্যু হয়েছে, সেখানে ২০১৪-২১-এর মধ্যে সেই সংখ্যা কমে ৬০ ও ৩০ হয়েছে। সঙ্গে তিনি বলেন, যদিও প্রশ্ন ওঠে কেন ওই ৩০ জনেরও মৃত্যু হবে।

সমস্যা বুঝতেই রাত কাটানোর সিদ্ধান্ত

সোমবারই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, তাঁর জম্মু ও কাশ্মীর সফরের সময় বাড়ানোর কথা। তিনি বলেছিলেন, আধাসামরিক বাহিনীর জওয়ানদের সমস্থা বুঝতে তিনি তাদের সঙ্গে একরাত কাটাতে চান। সিআরপিএফ ক্যাম্পে ভাষণ দিতে গিয়ে তিনি বলেন, তাঁর এই সফরে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল জওয়ানদের সঙ্গে সময় কাটানো। জওয়ানদের সঙ্গে পুলওয়ামার ক্যাম্পে রাত কাটানো তার জন্য সম্মানের বলেও মন্তব্য করেছেন অমিত শাহ।

জওয়ানদের সঙ্গেই রাতের খাবার

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং সেখানকার উপরাজ্যপাল মনোজ সিনহা পুলওয়ামার লেথপোরাতেই জওয়ানদের সঙ্গে রাতের খাবার খান।

২০১৯-এর অগাস্টে রাজ্য থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের পরে রক্তাক্ত ঘটনা এড়িয়ে কাজ করার ক্ষেত্রে সিআরপিএফ-সহ অন্য আধাসামরিক বাহিনীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেছেন, ৩৭০ ধারা এবং ৩৫এ ধারা অবলুপ্তির সময়ে অনেকে অনেক কিছু বলেছিলেন। এলাকা রক্তাক্ত হওয়ার আশঙ্কাপ্রকাশ করেছিলেন। কিন্তু বাস্তবে তার কিছুই হয়নি, জওয়ানদের সতর্ক থাকার কারণে।

জম্মু ও কাশ্মীরে উন্নয়নে একাধিক পরিবর্তন এসেছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। অমিত শাহ বলেছেন, জঙ্গি হামলায় জওয়ানদের মৃত্যুর জন্য যে পুলওয়ামার নাম দেশ তথা বিশ্বের কাছে পরিচিত হয়েছিল, সেই পুলওয়ামায় ২ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে একটি মেডিক্যাল কলেজ তৈরি করা হচ্ছে।

সুত্র : ওয়ান ইন্ডিয়া

আরও পড়ুন ::

Back to top button