টলিউডরাজনীতিরাজ্য

টুইটারে ক্ষোভ উগরে, বিজেপি ছাড়লেন শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়

বিধানসভা নির্বাচনের আগে অনেকেই যোগ দিয়েছিলেন বিজেপিতে (BJP)। কেউ দলবদল করেছিলেন, কেউ আবার রাজনীতির নতুন মুখ হিসেবে এসেছিলেন গেরুয়া শিবিরে। ভোটের পর তাঁদের মধ্যে অনেকেই দল ছেড়েছেন। এবার সেই তালিকায় নাম লেখালেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় (Srabanti Chatterjee)। ফেসবুক ও টুইটারে দলের প্রতি অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন তিনি।

আজ বুধবার সকালে টুইট করে দল ছাড়ার কথা জানিয়েছেন শ্রাবন্তী। তিনি লিখেছেন, ‘আমি দলের সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করলাম।’ দল ছাড়ার কারণ নিজেই জানিয়েছেন শ্রাবন্তী। তিনি দাবি করেছেন, রাজ্যের জন্য কিছু করার কোনও উদ্যোগ নেই বিজেপির। সেই কারণেই দল ছাড়লেন তিনি। রাজনৈতিক মহলের মতে, শ্রাবন্তী দল ছাড়লে দলের তেমন কোনও ক্ষতি হবে না। তবে এক তারকা মুখ কমে যাওয়া বিজোপির জন্য ধাক্কা বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

একুশের নির্বাচনের আগে ঘটা করে বিজেপিতে যোগ দেন টলি অভিনেত্রী শ্রাবন্তী। তৎকালীন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের হাত থেকে পতাকা তুলে নেন তিনি। বেহালা পশ্চিম কেন্দ্রে প্রার্থীও হন। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে লড়েন অভিনেত্রী। নির্বাচনে ৫০ হাজার ভোটে হেরে যান শ্রাবন্তী। ভোটের পর থেকেই আর রাজনৈতিক ক্ষেত্রে তেমন সক্রিয় হতে দেখেনি অভিনেত্রীকে। এবার দল ছাড়ার কথা নিজেই ঘোষণা করলেন তিনি।

শুধু শ্রাবন্তীই নয়, পার্নো মিত্র, পায়েল সরকার, তনুশ্রীর মতো একাধিক তারকাকে ভোটের ময়দানে নামিয়েছিল বিজেপি। অভিনেতা হিরণ বা ডিজাইনার অগ্নিমিত্রা পালের মতো কয়েকটি নাম বাদে, আর কাউকে দেখা যায়নি জয়ী প্রার্থীদের তালিকায়। ভোটের পর গেরুয়া শিবিরের এই তারকা প্রার্থীদের নগরের নটি বলে সম্বোধন করেন বিজেপি নেতা তথাগত রায়। তাঁদের ভোটে লড়ানোর সিদ্ধান্তকে সমর্থন করেননি তিনি। আজ শ্রাবন্তী দল ছাড়ার পর তিনি জানান, এটা প্রত্যাশিতই ছিল। এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই। তিনি বলেন, ‘অনেক আগেই বলেছিলাম। যা বলেছিলাম, মোটামুটি তাই হচ্ছে। আমি কোনও ভবিষ্যাৎ দ্রষ্টা নই, তবে নগরীর নটিদের দলে আনা যে রাজনৈতিক ভুল ছিল, সে কথা আমি আগেই বলেছিলাম। এখন সেই ভুলের মাশুল দিতে হচ্ছে।’ তথাগত রায়ের কথায়, এই সব প্রার্থীদের পিছনে টাকা খরচ করা ঠিক হয়নি।

আরও পড়ুন : অমানবিক! তরুণকে রাস্তায় ফেলে বুকে লাথি মারল গ্রিন পুলিশ!

ভোট আবহে দোলের দিনের একটি ছবি নিয়েও রাজনৈতিক বিতর্ক তৈরি হয়। সেই ছবিতেও দেখা গিয়েছিল শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়কে। তৃণমূল প্রার্থী মদন মিত্রের সঙ্গে গঙ্গাবক্ষে একসঙ্গে আনন্দে মেতে উঠতে দেখা গিয়েছিল বিজেপি প্রার্থী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়, তনুশ্রী চক্রবর্তী, পায়েল সরকারকে। এই ছবি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন অনেকেই। রাজনৈতিক মহলের মতে শ্রাবন্তী চলে যাওয়ায় কোনও প্রভাব পড়বে না দলে। তিনি সক্রিয় ছিলেন না, সংগঠনের কোনও কাজও করেননি। তাই তাঁর অভাব বোধ হবে না গেরুয়া শিবিরের। তবে এ ভাবে পরপর নেতা-নেত্রীদের দল ছাড়ার ঘটনা, বঙ্গ বিজেপিj কাছে একটা ধাক্কা বলে মনে করছেন অনেকেই।

সূত্র ভ: টিভি৯ বাংলা

আরও পড়ুন ::

Back to top button