দঃ ২৪ পরগনা

ভারতীয় জলসীমানায় ঢুকে পড়ায় দুটি বাংলাদেশি ট্রলারসহ আটক ১৫ জন মৎসজীবি

ভারতীয় জলসীমানায় ঢুকে পড়ায় দুটি বাংলাদেশি ট্রলারসহ ১৫ জন মৎসজীবিকে আটক করল ফ্রেজারগঞ্জ উপকূল রক্ষী বাহিনীর জওয়ানরা। সোমবার গভীর রাতে যখন ভারতীয় জলসীমানার বাঙ্গা দুনিয়ার কাছে হোভারক্রাফট নিয়ে টহলদারি চালাচ্ছিলেন ফ্রেজারগঞ্জ উপকূল রক্ষী বাহিনীর জওয়ানরা। তখন তাদের নজরে আসে দুটি বাংলাদেশি ট্রলার নিয়ে কয়েকজন মৎস্যজীবী ভারতীয় জলসীমায় ঢুকে পড়েছে। সঙ্গে সঙ্গে ওই দুটি ট্রলারকে আটক করে কর্তব্যরত অফিসাররা। পাশাপাশি ওই ১৫ জন বাংলাদেশি মৎস্যজীবীদের আটক করে সোমবার গভীর রাতেই আনা হয় ফ্রেজারগঞ্জ উপকূল রক্ষীর ঘাঁটিতে।কিন্তু তাদের ট্রলার দুটিকে আনা সম্ভব হয়নি। কালিস্থানের কাছে এফবি তাহিরা এবং এফবি তানজিলা নামের দুটি বাংলাদেশি ট্রলারকে নোঙ্গর করা হয়।

পরের দিন অর্থাৎ মঙ্গলবার দুপুরে ১৫ জন মৎস্যজীবীর মধ্যে চারজন মৎস্যজীবীকে নিয়ে কালিস্থান এর কাছে ওই ট্রলারদুটির কাছে যায় উপকূল রক্ষী বাহিনীর অফিসাররা। তারপরও এই মঙ্গলবার সন্ধ্যা নাগাদ এফবি তানজিলা এবং এফবি তাহেরা নামের দুটি ট্রলারকে বাজেয়াপ্ত করে আনা হয় ফ্রেজারগঞ্জ মৎস্য বন্দরে।

আরও পড়ুন : জ্বরের থেকেও বেশি ভাইরাল আমি, শুধু বাথরুমে প্রাইভেসি পাই: নুসরাত

এরপর এই মঙ্গলবার রাতে ফ্রেজারগঞ্জ উপকূল রক্ষী বাহিনীর পক্ষ থেকে ওই ১৫ জন বাংলাদেশি মৎস্যজীবীকে ফ্রেজারগঞ্জ কোস্টাল থানার হাতে তুলে দেওয়া হয়। ১৫ জন মৎস্যজীবীকে বুধবার সকালে ফ্রেজারগঞ্জ হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো হয়। তারপরেই কাকদ্বীপ ফৌজদারি আদালতের ১৫ জন বাংলাদেশি মৎস্যজীবীকে তোলা হলে বিচারক ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন। পাশাপাশি দুটি ট্রলারকেও বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেয়া হয়।

পুলিশি জেরায় মৎস্যজীবীরা জানিয়েছেন তারা তিন দিন আগে বাংলাদেশের মৎস্য বন্দর থেকে মাছ ধরতে বেরিয়েছিলেন। ঘন কুয়াশার জন্য দিক নির্ণয় করতে না পেরে তারা ভুলবশত ভারতীয় জলসীমায় ঢুকে পড়েন। ১৫ জন মৎস্যজীবীর বাংলাদেশের পটুয়াখালী জেলার মাহিপুর থানা এলাকায় বাড়ি বলে জানা গিয়েছে। আপাতত ওই মৎস্যজীবীদের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। এবং এফবি তানজিলা এবং এফবি তাহেরা নামের দুটি ট্রলার কেদারগঞ্জ মৎস্য বন্দরের রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন ::

Back to top button