জাতীয়

ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট দূর করা নিয়ে নতুন স্লোগান রামদাস আটওয়ালের

করোনা ভাইরাসের মোকাবিলা করতে সকলেইকলের মতো করে লড়ছে। দেশজুড়ে নতুন করে আতঙ্ক ছড়িয়েছে করোনার ওমিত্রন ভ্যারিয়েন্ট। এমন পরিস্থিতিতে ফের ময়দানে নেমে পড়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামনাস আটওয়ালে। তিনি এবার নতুন স্লোগান নিয়ে এসেছেন, যা নয়া করোনা ভাইরাস স্ট্রেইনের সঙ্গে লড়বে, তা হলো, ‘নো করোনা, করোনা নো’।

তিনি এও জানিয়েছেন যে তাঁর আগের স্লোগান যথেষ্ট কার্যকর ছিল এবং দেশের কেত্সলোড অনেকটাই হ্রাস পেয়েছিল।

প্রসঙ্গত, এর আগেও রামদাস আটওয়ালে “গো করোনা গো’ স্লোগান দিয়ে চর্চায় উঠে এসেছিলেন। রিপাবলিকান পার্টি অফ ইন্ডিয়া (আরপিআই)-এর প্রধান পুণেতেসাংবাদিকদের বলেন, এর আগে আমি গো করোনা, করোনা গো’ স্লোগান দিয়েছিলাম আর তারপরই করোনা চলে যায়। এই নতুন করোনা ভাইরাস স্ট্রেইনের জন্য, আমি ‘নো করোনা, করোনা নো’ স্লোগান দিচ্ছি।

ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ফেরভাইরাল তাঁর স্লোগান। নেট-নাগরিকরা ইতিমধ্যেই রামদসের নয়া স্লোগান নিয়ে মিমের ঝড় তুলেছেন। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে একটি ভিডিওতে আটওয়ালের সঙ্গে চীনের কুটনীতিবিদ ও এক বৌদ্ধ সন্ন্যাসীকে “গো কারোনা, গো করোনা” মন্ত্র আওতে দেখা যায় এক প্রার্থনাতে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তা ভাইরাল হতেসময় লাগে না।

২০ ফেব্রুয়ারি গেটওয়ে অফ ইন্ডিয়াতে এই ভিডিও শুট করা হয়। শুধু তাই নয়, চলতি বছরের মার্চে দেশে যখন করোনা ভাইরাসের দাপট শুরু হয়, তখন তাঁকে ” গো কারোনা, করোনা গো” স্লোগান দিতে দেখা গিয়েছিল মুম্বাই গেটের সামনে দাঁড়িয়ে।

আরও পড়ুন: জম্মু-কাশ্মিরে সংঘর্ষে দুই পাকিস্তানিসহ নিহত ছয়

ওই স্লোগান আওড়ালেই করোনা অতিমারী দূর হবে বলে নিদান দিয়েছিলেন। দুর্ভাগ্যবশত তার কিছুদিন বাদেই নিজেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন তিনি।

আটওয়ালে রাজ্যসভার সদসার পাশাপাশি তিনি নরেন্দ্র মোদি শাসিত সরকারের সামাজিক ন্যায়বিচারের প্রতিমন্ত্রীও অক্টোবরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত হন। এই সপ্তাহের গোড়ায়, আটওয়ালে জানিয়েছিলেন যে কেভিড-১৯ ভ্যাকসিন দেশে এক বা দু’মাসের মধ্যে উপলব্ধ হবে।

তিনি বলেছিলেন, “করোনা ভাইরাস দেশে আরও ৬-৭ মাস থাকবে, তবে একদিন তাকে যেতে হবে। ভ্যাকসিন এব্বার চলে আসলে, করোনা এখান থেকে চলে যাবে।”

নতুন সার্স-কোভ-২ ভ্যারিয়েন্ট দক্ষিণ ও পূর্ব ইংল্যান্ডে করোনা ভাইরাস বৃদ্ধি পাওয়ার পেছনে প্রধান কারণ। তারপর থেকে ভারতসহ একাধিক দেশ ব্রিটেন থেকে আসা বিমানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে এবং সফরের ওপরও কড়া নিন।

আরও পড়ুন ::

Back to top button