রাজ্য

আবার স্কুল-কলেজ বন্ধ হবার ইঙ্গিত দিলেন মুখ্যমন্ত্রী !

রাজ্যে কোভিড সংক্রমণ দিনদিন আবার বেড়ে চলেছে। আক্রান্তের সংখ্যাও বেড়ে যাচ্ছে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিস্থিতি সামাল দিতে পদক্ষেপ গ্রহণের ইঙ্গিত দিলেন।
মমতা অংশ নেন বুধবার গঙ্গাসাগরে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার প্রশাসনিক বৈঠকে।

সেখানে তিনি ইঙ্গিত দেন আবার স্কুল-কলেজ বন্ধের। একই সঙ্গে নির্দেশ দেন মমতা কলকাতায় গণ্ডিবদ্ধ এলাকা (কন্টেনমেন্ট জোন) চিহ্নিত করার বিষয় নিয়েও।ওই বৈঠকে শোনা গেছে মুখ্যমন্ত্রীর মুখে লোকাল ট্রেনের সংখ্যা কমানোর কথাও।

মঙ্গলবারই সেখানে পৌঁছেছেন মুখ্যমন্ত্রী গঙ্গাসাগর মেলার প্রস্তুতি দেখতে। বুধবার প্রশাসনিক বৈঠকে বসেন তিনি রাজ্যের শীর্ষস্তরের আমলাসহ দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার কর্মকর্তাদের নিয়ে।

মমতা উদ্বেগ প্রকাশ করেন ওই বৈঠকেই করোনা ভাইরাসের ওমিক্রন ধরন নিয়ে। তিনি জানিয়েছেন, ‘কোভিড পরিস্থিতি নজরে রাখো। যদি দেখ যে, স্কুলে আক্রান্তের সংখ্যা বেশি হচ্ছে, তা হলে আমরা কিছু দিনের জন্য আবার ছুটি করে দেব।’

মুখ্যমন্ত্রীর মতে, ‘যেহেতু তৃতীয় ঢেউ আসছে, রাজ্যে কোভিড পরিস্থিতি কী, ওমিক্রন পরিস্থিতি কী, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সেই মতো আমরা সিদ্ধান্ত নেব।’

আরও পড়ুন: ভারতীয় জলসীমানায় ঢুকে পড়ায় দুটি বাংলাদেশি ট্রলারসহ আটক ১৫ জন মৎসজীবি

মমতাকে রাজ্যের কোভিড পরিস্থিতি সম্পর্কে তথ্য দেন রাজ্যের স্বাস্থ্যসচিব নারায়ণ স্বরূপ নিগম। তিনি বলেন, ‘মঙ্গলবার রাজ্যে ৮০০ জনের মতো কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন। বুধবারও প্রায় হাজার জন সংক্রমিত। বিশেষ করে কলকাতা এবং শহরতলিতে আক্রান্তের সংখ্যা বেশি। হাসপাতালে ভর্তি করতে হচ্ছে না; তবে হাসপাতালে সব কিছু প্রস্তুত করা আছে।’

এরপরই মমতা বলেন, ‘বাইরে থেকে যে বিমান আসছে, সেখান থেকেই কোভিড বেশি ছড়াচ্ছে। ধরাও পড়েছে।’

এর পরই তার মন্তব্য, ‘ভয় পাওয়ার কারণ নেই। ছড়াচ্ছে বেশি। ফলে সংখ্যাটা বেশি হচ্ছে।’

মমতার পরামর্শ, বাইরে থেকে আসা বিমানে কলকাতার নাগরিকই বেশি থাকেন। আবার কলকাতার নাগরিকই বেশি যান বিদেশে। সে কারণে কলকাতা শহরে ফের গণ্ডিবদ্ধ এলাকা চিহ্নিত করতে হবে। এ ব্যাপারে প্রশাসনিক পর্যালোচনার কথাও বলেছেন মমতা।

আরও পড়ুন ::

Back to top button