বর্ধমান

উঠানে দাউ দাউ করে জ্বলছিল গৃহবধূ, ব্লেজার কেনার টাকা না পেয়ে স্বামীর কাণ্ড!

উঠানে দাউ দাউ করে জ্বলছিল গৃহবধূ, ব্লেজার কেনার টাকা না পেয়ে স্বামীর কাণ্ড! - West Bengal News 24

ব্লেজার কেনার টাকা না দেওয়ায় স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠল স্বামীর বিরুদ্ধে। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের পশ্চিম বর্ধমানের আসানসোলের ধেমোমেন কোলিয়ারি এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ ওই কাণ্ডে নিহতের স্বামীসহ চারজনকে আটক করেছে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

পুলিশের বরাতে খবরে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালে আসানসোলের জামুড়িয়ার নিঘা এলাকার বাসিন্দা কাঞ্চন নুনিয়ার সঙ্গে আসানসোল দক্ষিণ থানার ধেমোমেন কোলিয়ারির বাসিন্দা সুধীর নুনিয়ার বিয়ে হয়েছিল। বৃহস্পতিবার সুধীরের বাড়ির উঠোনে কিছু একটা দাউ দাউ করে জ্বলতে দেখেন প্রতিবেশীরা। ধোঁয়া এবং গন্ধে অনেকেই সেই সময় কৌতূহল প্রকাশ করেন। কিন্তু প্রতিবেশীদের কারও কারও বক্তব্য, তখন সুধীর জানিয়েছিলেন, বাড়িতে খাসির মাংস রান্না হচ্ছে। কিন্তু বাড়িতে ঢুকে তারা বুঝতে পারেন, উঠানে দাউদাউ করে জ্বলতে থাকা দেহটা কাঞ্চনের। কেউ কেউ কাঞ্চনের পুড়ে যাওয়ার দৃশ্য মোবাইলে ভিডিও করেন। ঘটনাস্থলেই কাঞ্চনের মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন : গরু পাচার মামলায় এবার অনুব্রত মণ্ডলকে তলব

কাঞ্চনের পরিবারের দাবি, বিয়ের সময় তিন লাখ টাকা নিয়েছিলেন সুধীর। তার পরেও, যৌতুকের জন্য কাঞ্চনের ওপর সুধীর এবং তার পরিবার চাপ দিতেন বলেও অভিযোগ। কাঞ্চনের পিসির অভিযোগ, ‘‘জামাই ২০ হাজার টাকার ব্লেজার চেয়েছিল। কিন্তু আমরা অত টাকা কোথায় পাব? চাঁদা তুলে ওর বিয়ে দিয়েছিলাম। মেয়েটা বলেছিল, টাকা না পেলে মারবে। আর তাই হরো।’’

পুলিশ সুধীর, তার বাবা গুলাব, মা মঞ্জু এবং জামাইকে আটক করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের ডিসি (সেন্ট্রাল) কুলদীপ এস এস জানান, এখনো কোনো লিখিত অভিযোগ থানায় জমা পড়েনি। তবে পুলিশ স্বতঃপ্রণোদিতভাবে চারজনকে আটক করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button