ঝাড়গ্রাম

জমজমাট ঝাড়গ্রাম জঙ্গলমহলের পুরভোট, লড়াইয়ের ময়দানে ৬৫ প্রার্থী

স্বপ্নীল মজুমদার

জমজমাট ঝাড়গ্রাম জঙ্গলমহলের পুরভোট, লড়াইয়ের ময়দানে ৬৫ প্রার্থী - West Bengal News 24

শনিবার ঝাড়গ্রাম পুরভোটের চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশিত হল। ১৮টি ওয়ার্ডে থাকলেন ৬৫ জন প্রার্থী। এদের মধ্যে তৃণমূলের ১৮, বিজেপির ১৮, বামেদের ১৩, কংগ্রেসের ৭ এবং নির্দল ৯ জন। নির্দল ৯ জনের মধ্যে কয়েকজন তৃণমূলেরই গোঁজ প্রার্থী। ফলে লড়াইটা জমজমাট হয়ে গিয়েছে। ১০ নম্বর ওয়ার্ডে জেলা তৃণমূলের কো-অর্ডিনেটর অজিত মাহাতোর বিরুদ্ধে বাম প্রার্থী হয়েছেন সিপিআইয়ের প্রতীক মৈত্র। যিনি করোনা কালে শ্রমজীবী ক্যান্টিন ও রেড ভলান্টিয়ারদের নেতৃত্ব দিয়ে প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন।

অজিতও করোনা কালে ঝাড়গ্রাম টাউন কোভিড যোদ্ধা দল গড়ে কাজ করেছিলেন। তিনি জেলা তৃণমূলের নেতা। তবে ওই ওয়ার্ডে তৃণমূলের গোঁজ প্রার্থী হয়ে নির্দলে দাঁড়িয়েছেন স্থানীয় তৃণমূল কর্মী গায়ত্রী ঘোষ। বিজেপির প্রার্থী আছেন জেলা যুব মোর্চার সভাপতি পেশায় আইনজীবী চন্দনেশ্বর সেনগুপ্ত।

আবার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল প্রার্থী টিএমসিপির জেলা সভাপতি আর্য ঘোষের বিরুদ্ধে নির্দল প্রার্থী হয়েছেন ওই ওয়ার্ডের প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলর রবিন মাহাতো। রবিন এবার টিকিট পাননি। ওই ওয়ার্ডে বিজেপির প্রার্থী হয়েছেন শিক্ষক সেলের নেতা অশোক মহান্তী। ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল প্রার্থী কৌশিক সিনহা ঝাড়গ্রমের নামী আইনজীবী। তবে তাঁর ওয়ার্ডেও প্রাক্তন কাউন্সিলর নবু গোয়ালা নির্দল প্রার্থী হয়েছেন।

আরও পড়ুন : বেসুরে বাজছে দল, জরুরি বৈঠক তলব মমতার

ওই ওয়ার্ডে বিজেপি প্রার্থী হয়েছেন জয় মাহাতো, যিনি আগে তৃণমূলের শহর আইটি সেলের দায়িত্বে ছিলেন। এছাড়াও ৮ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছেন পুর চেয়ারপার্সন কবিতা ঘোষ। ৯ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছেন প্রশান্ত রায়, যিনি প্রাক্তন পুর-চেয়ারপার্সন। ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে ফের তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছেন দুর্গেশ মল্লদেব, যিনি ২০১৩-২০১৮ তৃণমূল পরিচালিত নির্বাচিত পুরবোর্ডের পুরপ্রধান ছিলেন।

সব মিলিয়ে ঝাড়গ্রাম পুরভোট জমে উঠেছে। বাম ও কংগ্রেসের বেশির ভাগ প্রার্থীই লড়াইয়ের জায়গায় নেই বলে মনে করা হচ্ছে। তবে ২ নম্বর ওয়ার্ডের সিপিএম প্রার্থী পেশায় টোটোচালক ও কোভিড যোদ্ধা পার্থ ভট্টাচার্য ও ১০ নম্বর ওয়ার্ডের প্রতীক ভাল লাড়াই দেবেন বলে আলোচনা করছেন শহরবাসী। ১৯৮২ সালে ঝাড়গ্রাম পুরসভা গঠিত হয়। প্রথমে ছিল বামেদের মনোনীত রোর্ড।

প্রথম পুরভোট হয় ১৯৮৮ সালে। ২০১৩ পর্যন্ত বামেরা ক্ষমতায় ছিল। ২০১৮ সালে তৃণমূলের পুরবোর্ডের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরে প্রশাসক নিয়োগ করে রাজ্য সরকার। পরে দু’দফায় প্রশাসনিক বোর্ডের মাধ্যমে পরিচালিত হয়েছে পুরসভা। এবার নবম পুর নির্বাচন হবে আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি।

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button