বিনোদন

কাশ্মীর ইস্যুতে বলিউড তারকারা কী ভাবছেন?



ভারতের সংবিধানের ৩৭০ ধারায় জম্মু-কাশ্মীরকে অস্থায়ী ভিত্তিতে দেওয়া বিশেষ সুবিধা বাতিল করা হয়েছে। এ নিয়ে দেশজুড়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়। পিছিয়ে নেই বলিউড তারকারাও। সামাজিক মাধ্যমে কঙ্গনা রনৌত, চেতন ভগত, দিয়া মির্জা, জায়রা ওয়াসিম, অনুপম খের, গওহর খানসহ আরও অনেক তারকাই জানিয়েছেন তাদের অনুভূতি।

ভারতের অন্য রাজ্যগুলোর তুলনায় অনেকগুলো বিশেষ সুবিধা ভোগ করতো জম্মু-কাশ্মীর। সংবিধানের ৩৭০ ধারা ও ৩৫-ক অনুচ্ছেদ বাতিল করায় কাশ্মীর এখন আর বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত রাজ্য নয়, বরং আর সব রাজ্যের মতো সাধারণ এলাকায় পরিণত হলো।
কাশ্মীরের অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি প্রসঙ্গে ভারতের মডেল ও অভিনেত্রী গওহর খান কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আব্দুল্লাহ্’র একটি টুইট বার্তা শেয়ার করে বলেন, ‘এসব কী হচ্ছে? আল্লাহ কাশ্মীরে প্রত্যেককে নিরাপদে রাখুন।’

চেতন ভগত তার ৫ বছর পুরনো একটি পোস্ট ভাগ করে টুইটারে লিখেছেন, ‘৫ বছর আগেই আমি এটা বলেছিলাম। অবশেষে সেই সময়টা এসে গেল। এক দেশ, এক ব্যবস্থা।’ আরেক পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘আগস্ট ৫, ২০১৯। কাশ্মীর চূড়ান্তভাবে মুক্ত হলো; মুক্তভাবে বেড়ে উঠতে, আর মুক্তভাবে ভবিষ্যত নির্মাণ করতে।’

একতা কাপুর দিনটিকে ঐতিহাসিক বলে উল্লেখ করে লিখেছেন, ‘এটি একটি মৌলিক সিদ্ধান্ত, কিন্তু সময়ের দাবি। শুধু আশা করি, কাশ্মীর নিরাপদ থাকুক।’

দিয়া মির্জা টুইটারে লিখেছেন, ‘কাশ্মীর নিয়েই আমার চিন্তা। শান্তির জন্য প্রার্থনা করছি।’

সদ্য বলিউডকে বিদায় জানানো তরুণী অভিনেত্রী জায়রা ওয়াসিম কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে লিখেছেন, ‘এই পরিস্থিতিও কেটে যাবে।’


বর্ষীয়ান অভিনেতা অনুপম খের লিখেছেন, ‘কাশ্মীর সমস্যার সমাধান শুরু।’

কঙ্গনা রনৌত লিখেছেন, ‘৩৭০ ধারা বাতিল করা দীর্ঘদিনের দাবি ছিল। সন্ত্রাসমুক্ত জাতি গঠনে এটি একটি ঐতিহাসিক পদক্ষেপ। বহুকাল ধরেই আমি এর ওপর গুরুত্ব দিয়েছি। আমি জানতাম, যদি কেউ এই অসম্ভব কীর্তি অর্জন করতে পারেন, তিনি নরেন্দ্র মোদিই। তিনি শুধু দূরদর্শী নেতা নন, তার সেই প্রয়োজনীয় সাহস ও চারিত্রিক শক্তি আছে যা দিয়ে তিনি অচিন্তনীয় ব্যাপারকেও বাস্তবে রূপায়ন করতে পারেন। এই ঐতিহাসিক দিনে আমি জম্মু-কাশ্মীরসহ সমগ্র ভারতকে অভিনন্দন জানাই। আমরা একসঙ্গে অনেক উজ্জ্বল ভবিষ্যতের দিয়ে তাকিয়ে আছি।’

অভিনেতা-রাজনীতিক পরেশ রাওয়াল টুইটারে লিখেছেন, ‘আজ আমাদের মাতৃভূমির সত্যিকারের ও সম্পূর্ণ স্বাধীনতা হলো। বাস্তবিক অর্থে আজই ভারত এক হলো।’

সিনেমা নির্মাতা মধুর ভাণ্ডারকর এই ঘটনাকে ‘ঐতিহাসিক’ ও ‘সাহসী’ বলে আখ্যায়িত করেছেন। এ ঘটনায় তিনি খুশি।

অভিনেত্রী পূজা বেদি টুইটারে মত প্রকাশ করেছেন, কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা অস্থায়ী ভিত্তিতে ছিল এবং এটার অবলুপ্তি অবশ্যম্ভাবী ছিল।

অভিনেতা রণবীর শোরে টুইটার বার্তায় লিখেছেন, ‘কাশ্মীরে সরকারি পদক্ষেপকে স্বাগত জানাই। কাশ্মীর সংশ্লিষ্ট সমস্যাগুলো সমাধানের পথ অনেক দূর এগিয়ে গেল। এখানে মানুষের জীবনে শান্তি ও সমৃদ্ধি এনে দেবে এই সিদ্ধান্ত। ঘৃণাকারীরা তাদের ঘৃণা চালিয়ে যেতেই পারে। আশা করি, কাশ্মীরি পণ্ডিতদের পুনর্বাসন শিগগিরই শুরু হবে।’

সিনেমা নির্মাতা কুনাল কোহলি লিখেছেন, ‘যারা বলেন ৩৭০ ধারা বাতিল করা অসাংবিধানিক, আসলে তাদের কোন ভিত্তি নেই। একসময় এটা প্রয়োগ করা যেমন কল্যাণকর ছিল, তেমনি এটা যখন আর কার্যকর ফল দেয় না তখন এটা সরিয়ে নেওয়াটাও কল্যাণকর। এটা কখনোই স্থায়ী হওয়ার কথা ছিল না। একই কাজ বারবার করে ভিন্ন ফল পাওয়ার আশা করা বোকামি।’


Related Articles

Back to top button