ওপার বাংলা

কপালে টিপ কেন? শিক্ষিকার ওপর চড়াও পুলিশের পোশাক পরা ব্যক্তি

কলেজে যাচ্ছিলেন শিক্ষিকা। কপালে ছিল টিপ। সেই টিপ দেখেই মাথায় খুন চেপে গেলে পুলিশের পোশাক পরা এক ব্যক্তির। এর পর অকথ্য ভাষায় গালাগাল। শিক্ষিকা প্রতিবাদ করায় তার ওপর মোটরসাইকেল তুলে দেওয়ার চেষ্টা চালানো হয়।

বাংলাদেশের ঢাকার ফার্মগেটে শনিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী ড. লতা সমাদ্দার তেজগাঁও কলেজের থিয়েটার অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের প্রভাষক। তার স্বামী অধ্যাপক ড. মলয় বালা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের প্রাচ্যকলা বিভাগের শিক্ষক।

ঘটনার পর শেরেবাংলা নগর থানায় অভিযোগ করেছেন ড. লতা সমাদ্দার। লিখিত অভিযোগে বলা হয়, শনিবার সকাল ৮টা ২০ মিনিটের দিকে রিকশায় করে ফার্মগেটে নামেন। আনন্দ সিনেমা হলের সামনে থেকে হেঁটে কলেজে যাওয়ার সময় সেজান পয়েন্টের সামনে মোটরসাইকেলে (নম্বর-১৩৩৯৭০) বসে থাকা পুলিশের পোশাক পরা এক ব্যক্তি কপালের টিপ নিয়ে বাজে মন্তব্য করেন। এক পর্যায়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন তিনি। পেছনে ফিরে প্রতিবাদ করলে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করা হয়। এসময় গায়ে মোটরসাইকেল তুলে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। সরে গিয়ে রক্ষা পেলেও তিনি আহত হয়েছেন । এরপর পাশেই দায়িত্বরত এক ট্রাফিক পুলিশকে ঘটনাটি জানান।

অভিযোগের বিষয়ে পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের ডিসি বিপ্লব কুমার সরকার জানান, শিক্ষিকার অভিযোগটি সাধারণ ডায়েরি হিসেবে রেকর্ড করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করা হচ্ছে। অভিযুক্ত ব্যক্তি থানা পুলিশের নাকি ট্রাফিক বিভাগের তা তদন্ত হচ্ছে।’

আরও পড়ুন ::

Back to top button