আন্তর্জাতিক

করোনার জেরে চীনে ‘একসঙ্গে ঘুমানো ও চুমু খাওয়া’ নিয়ে নতুন বিধিনিষেধ

করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারনের চীনের সাংহাইয়ে নতুন করে কঠোর লকডাউন জারি করা হয়েছে। এ কারণে সেখানকার বাসিন্দাদের জীবনযাপন কঠিন হয়ে গেছে।

একটি ভিডিওতে দেখা যায়, স্বাস্থ্যসেবা কর্মীরা সেখানকার একটি হাউজিং সোসাইটির বাসিন্দাদের উদ্দেশে বলেন, আজ রাত থেকে দম্পতিদের আলাদাভাবে ঘুমানো উচিত, চুম্বন করা উচিত নয়, আলিঙ্গনের অনুমতি নেই এবং আলাদাভাবে খাওয়া-দাওয়া করুন।

নগরীর স্থানীয়রা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কুকুরকে হাঁটানোর মতো দৈনন্দিন কাজ কীভাবে করছেন তা তুলে ধরছেন।

চীনের সাংহাই বর্তমান করোনা প্রাদুর্ভাবের হটস্পট। যদিও গত কয়েক দিনে দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা কমেছে, তবুও অন্যান্য দেশের তুলনায় তা উল্লেখযোগ্যভাবে বেশি। এই শহরের ২ কোটি ৬০ লাখ বাসিন্দাদের বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে।

টুইটারে সাংহাইয়ের বাসিন্দাদের টুইট করা ভিডিওতে দেখা যায়, শহরটির বাসিন্দারা খাদ্য ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রীর সরবরাহ ঘাটতির প্রতিবাদে বেলকনিতে দাঁড়িয়ে গান গেয়ে প্রতিবাদ করার সময় ড্রোনের মাধ্যমে বাসিন্দাদের সর্তক করা হচ্ছে। কোভিড-১৯ বিধিনিষেধ মেনে চলার পাশাপাশি নিজেদের ইচ্ছা সংবরণের আহ্বান জানানো হয়।

এক সপ্তাহ আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিওতে দেখা যায়, চার পায়ের রোবটগুলি সাংহাইয়ের রাস্তায় টহল দিচ্ছে এবং স্বাস্থ্যবিধি ঘোষণা করছে।

অন্যদিকে কোভিড নিষেধাজ্ঞার কারণে খাদ্য এবং প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র বিতরণ নিয়ে বাসিন্দাদের মধ্যে অসন্তোষ বাড়ছে। নগর প্রশাসন সমস্যার কথা স্বীকার করেছে এবং পরিস্থিতির উন্নতির অঙ্গীকার করছেন।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে সাংহাইয়ের ভাইস মেয়র চেন টং বলেছেন, সাংহাইতে চাল এবং মাংসের মতো প্রধান খাবারের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে, তবে মহামারী নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার কারণে বিতরণে সমস্যা দেখা দিয়েছে।

সূত্র : চ্যানেল আই

আরও পড়ুন ::

Back to top button