দঃ ২৪ পরগনা

দক্ষিণ ২৪ পরগণার কুলতলিতে নতুন দলীয় কার্যালয় উদ্বোধন করল স্বরাজ ইন্ডিয়া

দক্ষিণ ২৪ পরগণার কুলতলিতে নতুন দলীয় কার্যালয় উদ্বোধন করল স্বরাজ ইন্ডিয়া - West Bengal News 24

আজ কুলতলি ব্লকে ভুবনেশ্বরী নকুলের মোড়ে স্বরাজ ইন্ডিয়া’র নতুন দলীয় কার্যালয়ের উদ্বোধন হল। কার্যালয়ের উদ্বোধনে উপস্থিত ছিলেন অভীক সাহা (সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক, স্বরাজ ইন্ডিয়া এবং সর্বভারতীয় সভাপতি, জয় কিষাণ আন্দোলন), রাম বচ্চন (রাজ্য সম্পাদক, স্বরাজ ইন্ডিয়া), ডঃ রত্না পাল (রাজ্য কোষাধ্যক্ষ, স্বরাজ ইন্ডিয়া), রাজ্য সহ-সভাপতিগণ, স্বরাজ ইন্ডিয়া – কল্যাণ সেনগুপ্ত, সুরেশ দাস, সমীর দাস, ভোলা প্রসাদ যাদব (রাজ্য সভাপতি, অল ইন্ডিয়া শ্রমিক স্বরাজ কেন্দ্র), পৌলোমী ঘোষ (রাজ্য মুখপাত্র, যুব স্বরাজ), সুফিয়া খাতুন (রাজ্য সভাপতি, মহিলা স্বরাজ), প্রবীর মিশ্র (রাজ্য সভাপতি, জয় কিষাণ আন্দোলন) ও সুশান্ত কাঁড়ি (হুগলি জেলা সভাপতি)। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন রাজ্য, জেলা ও আঞ্চলিক নেতৃবৃন্দ।

শ্রী অভীক সাহা বলেন: “আজ আমরা ঘোষণা করছি যে আগামী দিনে আমাদের দল ও সবকটি শাখা সংগঠন সামাজিক ও রাজনৈতিকভাবে শ্রেণীগত স্বার্থে সমাজের সর্বস্তরের মানুষের পাশে থাকবে। প্রতিটি অন্যায়ের প্রতিকারের জন্য প্রয়োজনে প্রশাসন ও সরকারকে আদালত পর্যন্ত নিয়ে যাবে। প্রতিটি অধিকারের লড়াইয়ে মানুষকে সঙ্ঘবদ্ধ করে রাস্তায় নেমে শান্তিপ্রিয় গণতান্ত্রিক আন্দোলন করবে।”

শ্রী রাম বচ্চন বলেন: “সার্বিক সামাজিক সুরক্ষা বিষয়ে আমাদের শাখা সংগঠনগুলির কাজে যদি বাধা এবং প্রতিকূল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় তখন আমাদের দল স্বরাজ ইন্ডিয়া সমগ্র এলাকায় রাজনৈতিক কর্মসূচিতে ও নির্বাচনী লড়াইয়ে অংশ নেবে। আমরা মনে করি রাজনীতি কোন ধান্দা বা ব্যবসা নয়। রাজনীতি হলো প্রতিটি মানুষের স্বধর্ম। সমাজে বঞ্চিত অবহেলিত শোষিত মানুষের বিকল্প ভাবনার আত্মপ্রকাশ স্বরাজ ইন্ডিয়া।”

শ্রী প্রবীর মিশ্র বলেন: “এলাকার কৃষক, ক্ষেতমজুর, মৎস্যজীবীদের মৌলিক অধিকার সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানো, প্রতিটি ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য আদায় অন্যথায় আন্দোলন সংগঠিত করা, প্রান্তিক ভাগচাষী ও লিজ চাষিদের অধিকার আদায় ও রিফিউজিদের জমির রেকর্ড করিয়ে তাদের সমস্ত সুযোগ সুবিধে আদায় করা জয় কিষাণ আন্দোলনের কাজ। সেই সঙ্গে রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারী সমস্ত সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা আমরা করবো। জয় কিষাণ আন্দোলন এলাকার কৃষকের অধিকার ও অন্যান্য স্বার্থে কাজ করে চলেছে ও নিরন্তর কাজ করবে। এই কার্যালয়ে স্থানীয় কৃষক খেতমজুররা তাদের সমস্যা নিয়ে আসতে পারবেন। আমরা সেই সমস্যাগুলির সমাধানের জন্য সব রকম চেষ্টা করবো।”

শ্রীমতী সুফিয়া খাতুন বলেন: “মহিলা স্বরাজ পারিবারিক হিংসা বন্ধ করা, মদ মুক্ত বাংলা গড়া, নারী ও শিশু পাচার প্রতিরোধ করা, বাল্য বিবাহ বন্ধ করা, মহিলাদের সমকাজে সমমজুরির অধিকার রক্ষা করা ও সার্বিক সংগঠন তৈরি করার কাজ করবে। মহিলা স্বরাজ এলাকার খেটে-খাওয়া মহিলাদের অধিকারের জন্য কাজ করবে। আমরা কুলতলি কে নারী পাচার মুক্ত করতে সকলকে সঙ্ঘবদ্ধ করবো। মহিলাদের ও নাবালিকাদের প্রতি এই অন্যায় অত্যাচার মুছে ফেলব।”

শ্রী ভোলা প্রসাদ যাদব বলেন: “শ্রমিক স্বরাজ কেন্দ্র নারী পুরুষ নির্বিশেষে শ্রমিক স্বার্থে কাজ করবে। ১০০ দিনের কাজের সচেতনতা বৃদ্ধি এবং দুর্নীতি বন্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া, মিড ডে মিল কর্মীদের প্রকৃত সাম্মানিকের দাবিতে সংগঠিত করা, প্রবাসী শ্রমিক তালিকা পঞ্চায়েত গত ভাবে রেজিস্ট্রেশন বাধ্যতামূলক করা, সরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত অসংগঠিত শ্রমিকদের পরিচয় পত্র ও বার্ধক্য জনিত ভাতার ব্যবস্থা করা এবং অন্যান্য সুযোগ সুবিধা আদায়ের কাজ করবে।”

শ্রীমতি পৌলোমী ঘোষ বলেন: “জেলায় দল এবং দলের বিভিন্ন শাখা সংগঠনের কাজ দ্রুত বেড়ে চলেছে। জেলার প্রচুর মানুষ দল ও সংগঠনের সাথে উৎসাহের সাথে যুক্ত হচ্ছেন। তাই এই কার্যালয়ের প্রয়োজন ছিল।”

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button