রাজ্য

রোজভ্যালির আমানতকারীদের জন্য সুখবর দিল কলকাতা হাইকোর্ট!

রোজভ্যালি মামলায় সম্পত্তি হস্তান্তরের নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। রোজভ্যালির বাজেয়াপ্ত সম্পত্তি ও টাকা হস্তান্তরের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি। ইডি মূলত এই বিপুল সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করেছে। সেই সম্পত্তিই অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি দিলীপ শেঠের নেতৃত্বাধীন কমিটিকে হস্তান্তরের নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। বিচারপতি ইন্দ্রপ্রসন্ন মুখোপাধ্যায় ও বিচারপতি শুভেন্দু সামন্তর ডিভিশন বেঞ্চ এই নির্দেশ দেন।

বাজেয়াপ্ত সম্পত্তি বিক্রি করে আমানতকারীদের টাকা ফেরতের পদক্ষেপ করবে বিচারপতি দিলীপ শেঠ কমিটি। আদালতে জমা দেওয়া হলফনামায় রাজ্য জানিয়েছে বিচারপতি দিলীপ শেঠ কমিটির ভার তারা আর বহন করতে পারবেন না। কী কারণে রাজ্য এই ব্যয়ভার বহন করতে পারবে না তা হলফনামা দিয়ে জানাতে হবে রাজ্যকে। আগামী ২৪ অগস্টের মধ্যে তা জানাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই দিনই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে।

রোজভ্যালিকাণ্ডে ২০১৫ সাল থেকে জেলে রয়েছেন গৌতম কুণ্ডু। সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন গৌতম-ঘরণী শুভ্রা কুণ্ডুও। শুভ্রাকে হেফাজতে নিয়ে সিবিআইয়ের প্রথম লক্ষ্য, সেই নামটি খুঁজে বের করা যাঁর ‘আশ্বাসের হাত’ মাথায় থাকার জন্য স্বামীকে বাদ দিয়েও দিনের পর দিন সোনার গয়নার ব্যবসা চালিয়ে গিয়েছেন শুভ্রা। তাঁর অদ্রিজা জুয়েলারি প্রথমে রোজভ্যালির ছাতার তলায় থাকলেও পরে তা স্ত্রীর নামে করে দেন গৌতম। রোজভ্যালি কর্তা গ্রেফতারের পরও রমরমিয়ে সে দোকান চলেছে। কার সহযোগিতায় এই ব্যবসা শুভ্রা এগিয়ে নিয়ে যান তা জানতে চায় তদন্তকারীরা।

উল্লেখ্য, গৌতম কুণ্ডু গ্রেফতারের পর থেকেই রোজভ্যালি গোষ্ঠীর যত সম্পত্তি রয়েছে তার তালিকা তৈরি শুরু করে তদন্তকারী সংস্থা ইডি। এর মধ্যে রোজভ্যালির কর্ণধার গৌতম কুণ্ডুর বাড়ি, অফিস এবং তাঁর গচ্ছিত টাকার হিসাবও রয়েছে। বেশ কয়েকটি বাড়ি খালি করারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল আগেই। এবার রোজভ্যালি গোষ্ঠীর ২৬ কোটি ৯৮ লাখ টাকার স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল ইডি।

হাইকোর্টই নির্দেশ দিয়েছিল। বছর কয়েক আগে রোজভ্যালির টাকা ফেরানোর জন্য বিচারপতি দিলীপ শেঠ কমিটি তৈরি করা হয়। আগেই এই কমিটির খবর বহন করতে পারবে না বলে জানায় রাজ্য। রাজ্যের তরফে আদালতে জানানো হয়েছিল, যেহেতু হাইকোর্টের নির্দেশেই বিচারপতি তালুকদার কমিটি গঠন হয়েছে। সেখানে অন্যান্য একাধিক অর্থলগ্নিকারী ভুঁইফোড় সংস্থার মামলা চলছে। তাই রাজ্য শুধু এই কমিটির আর্থিক দায়ভার ও পরিকাঠামোর দায়িত্ব নেবে বলে জানিয়েছিল।

সূত্র : টিভি৯বাংলা

আরও পড়ুন ::

Back to top button