ঝাড়গ্রাম

ঝাড়গ্রাম শহরে ভোর বেলায় বৃদ্ধাকে বেঁধে রেখে ডাকাতি

স্বপ্নীল মজুমদার

ঝাড়গ্রাম: সাত সকালে ঝাড়গ্রাম শহরে ঘটল দুঃসাহসিক ডাকাতির ঘটনা। মঙ্গলবার ভোর চারটা নাগাদ ছয় জনের সশস্ত্র ডাকাত দলটি শহরের বাছুরডোবা টাউন হল এলাকার সাবিত্রী দাসের বাড়ির জানালার গ্রিল খুলে ভিতরে ঢুকেছিল। তার পর ওই বৃদ্ধাকে বেঁধে রেখে লুঠপাট চালিয়ে চম্পট দিল তারা।

বারো বছর ধরে সেখানকার বাসিন্দা বছর পঁয়ষট্টির সাবিত্রী দাস। বছর তিনেক আগে তাঁর স্বামী প্রয়াত হওয়ায় বাড়িতে একাই থাকেন তিনি। তাঁর দুই মেয়ে সিউড়ি ও জলপাইগুড়ির বাসিন্দা। এদিন প্রতিদিনের মত ভোরে উঠে ঠাকুর ঘরে গিয়েছিলেন সাবিত্রী। আচমকা যুবক বাড়িতে ঢুকে তাঁর হাত বেঁধে রেখে ঘরদোর লণ্ডভণ্ড করে আলমারি খুলে নগদ টাকা ও গয়না লুঠ করে।

খবর পেয়ে তদন্তে যায় ঝাড়গ্রাম থানার পুলিশ। তদন্ত করতে আসেন ঝাড়গ্রাম জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) কল্যাণ সরকার ও ঝাড়গ্রাম থানার আইসি বিপ্লব কর্মকার। স্থানীয় ৩ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর শিউলি সিংহ সাবিত্রীর বাড়িতে যান। অনুমান বৃদ্ধার বাড়িতে নগদ টাকা ও গয়না থাকার আগাম খবর ছিল দুষ্কৃতীদের কাছে।

স্থানীয় সিসিটিভির ফুটেজ খতিয়ে দেখছে পুলিশ। এদিন দুষ্কৃতীরা পালানোর সময় বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেন স্থানীয় নির্মীয়মান একটি বাড়ির দেখভালের দায়িত্বে থাকা পবন শর্মা নামে এক যুবক। তবে ডাকাতরা তাকে পিস্তল দেখিয়ে নির্বিবাদে হেঁটে চলে যায়।

বৃদ্ধার অভিযোগের ভিত্তিতে ডাকাতির ধারায় মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। খোদ শহরে এমন ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায়। যদিও রাতে পুলিশি টহল বাড়ানোর আশ্বাস দিয়েছে পুলিশ।

আরও পড়ুন ::

Back to top button