নদীয়া

মহারাণী জ্যোতির্ময়ী বালিকা বিদ্যালয়ে ‘কৃষ্ণনগর পরিবেশ বন্ধু’-র পরিবেশ কর্মসূচি

৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ কৃষ্ণনগরের মহারাণী জ্যোতির্ময়ী বালিকা বিদ্যালয়ে ‘কৃষ্ণনগর পরিবেশ বন্ধু’-র পক্ষ থেকে পরিবেশ সচেতনতামূলক প্রচারাভিযান করা হয়। এদিনের কর্মসূচিতে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা এবং শিক্ষাকর্মীবৃন্দ যোগদান করেছিলেন। সভাকক্ষ হিসেবে বিদ্যালয়ের একটি ঘরকে ব্যবহার করা হয়। কৃষ্ণনগর পরিবেশ বন্ধুর পক্ষ থেকে এদিনের আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন তরুণকুমার সাহা, মমতা বিশ্বাস, সুকৃতি ঘোষ এবং দীপাঞ্জন দে।

মহারাণী জ্যোতির্ময়ী বালিকা বিদ্যালয় ১৯৫০ সালে স্থাপিত। বর্তমানে এই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা সুচিত্রা গাঙ্গুলী। কৃষ্ণনগর পরিবেশ বন্ধুর কর্মসূচিতে প্রধান শিক্ষিকা সহ অন্যান্য দিদিমণি এবং শিক্ষাকর্মীরা সক্রিয়ভাবে সহযোগিতা করেন। বিদ্যালয়ের সাথে যোগসূত্রতা স্থাপনে পরিবেশ বন্ধু মমতা বিশ্বাস বিশেষ ভূমিকা নেন। বিগত দিনেও দেখা গেছে কৃষ্ণনগর পরিবেশ বন্ধুর সদস্যরা স্কুলে স্কুলে গিয়ে পরিবেশ ভাবনার আলোচনা করেছেন। এদিন তারা গিয়েছিলেন কৃষ্ণনগরের রায়পাড়াস্থিত মহারাণী জ্যোতির্ময়ী বালিকা বিদ্যালয়ে। সভাকক্ষে বিদ্যালয়ের পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিল। বিদ্যালয়ের দিদিমনিরাও আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। প্রধান শিক্ষিকা তাদের বিদ্যালয়ের ডাস্টবিন ক্লিন প্রকল্পের কথা জানান।

কৃষ্ণনগর পরিবেশ বন্ধুর পক্ষ থেকে বিদ্যালয়ের ছাত্রীদের কিছু পরিবেশ বান্ধব প্রকল্প (যেমন- ইকোব্রিক তৈরি, পরিবেশবান্ধব ক্লাসরুম গড়া, প্লাস্টিক ক্যারিব্যাগ মুক্ত বিদ্যালয় গঠন ইত্যাদি) দিয়ে আসা হয়। প্রয়োজনে পরিবেশ বন্ধুর যোগাযোগ নম্বরও (7001337714) শিক্ষার্থীরা ব্যবহার করতে পারবে। পরিবেশ বন্ধু দীপাঞ্জন দে তাদের কর্মসূচি সম্পর্কে বলেন, “দূষণমুক্ত পরিবেশ গড়ার লক্ষ্যে প্রতি সপ্তাহে আমরা বিদ্যালয়গুলিতে যাচ্ছি এবং শিক্ষার্থীদের সাথে আলোচনা করছি। আর তাদের প্রকল্পগুলির পর্যালোচনা করতে কৃষ্ণনগর পরিবেশ বন্ধুর পক্ষ থেকে দুই মাস অন্তর স্কুলগুলিতে পুনরায় যাওয়ার পরিকল্পনাও নেওয়া হয়েছে।”

আরও পড়ুন ::

Back to top button