জাতীয়

পরের মাসেই শুরু হবে নোভাভ্যাক্সের টিকার ট্রায়াল

এবার আশ্বস্ত করতে আসছে নোভাভ্যাক্স। মার্কিন সংস্থা নোভাভ্যাক্সের তৈরি করোনা টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হবে ভারতে। আগামী মাস থেকেই। সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া (‌এসআইআই)‌ এবং ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ (‌আইসিএমআর)-‌এর যৌথ উদ্যোগে চলবে ট্রায়াল।

নিরাপদ ও কার্যকরী টিকা কবে আসবে,‌ তা নিয়ে নানা জল্পনা চলছে। এদিকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন বৃহস্পতিবার সংসদে এক প্রশ্নের জবাবে জানান, খুব সম্ভবত আগামী বছরের শুরুতে ভারতে করোনা টিকা পাওয়া যাবে।

আমেরিকার বায়োটেকনোলজি সংস্থা নোভাভ্যাক্স। আগস্ট মাসে সংস্থাটি তাদের টিকার ১০০ কোটি ডোজ উত্‍পাদন নিয়ে সিরামের সঙ্গে চুক্তি করেছে। পরে বাড়িয়ে ২০০ কোটি ডোজ উত্‍পাদন করতে বলেছে সিরামকে।

ভারতে নোভাভ্যাক্সের টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ হতে পারে, আভাস ছিল তখনই। কথাবার্তা চলছিল। ওয়াকিবহাল মহলের খবর, সিরামের তত্‍পরতায় অক্টোবর মাস থেকেই ভারতে নোভাভ্যাক্সের টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল হবে।

আমেরিকায় এই টিকার দ্বিতীয় পর্বের ট্রায়াল চলছে। সংস্থার দাবি, টিকা নেওয়ার পর স্বেচ্ছাসেবীদের শরীরে প্রচুর পরিমাণে করোনা-‌রোধী অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে। সেপ্টেম্বর মাসের শেষ থেকে শুরু হবে তৃতীয় পর্বের ট্রায়াল। তার আগে ভারতে এই ট্রায়ালে জোর দিয়েছে মার্কিন ওষুধ নির্মাণকারী সংস্থা।

আরও পড়ুন : দেশে ফের আক্রান্তের সংখ্যা ৯৬ হাজারেরও বেশি, মোট সংক্রমণ ছাড়াল ৫২ লক্ষ

এদিকে কিছুদিন থমকে থাকার পর ফের মঙ্গলবার অক্সফোর্ড ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনা টিকা কোভশিল্ডের ট্রায়াল শুরুর অনুমতি পেয়েছে সিরাম। ব্রিটেনে কোভশিল্ডের তৃতীয় পর্বের ট্রায়ালে টিকা নেওয়ার পর এক স্বেচ্ছাসেবী অসুস্থ হয়ে পড়ায় সুরক্ষার স্বার্থে সে দেশের পাশাপাশি ভারতেও কোভশিল্ডের ট্রায়াল বন্ধ ছিল।

অক্সফোর্ডের দাবি, সাঙ্ঘাতিক কোনও ব্যাপার ঘটেনি। টিকার ডোজেই স্বেচ্ছাসেবী অসুস্থ হয়েছিলেন, তেমন কোনও প্রমাণ মেলেনি। অন্য কোনও কারণে তিনি অসুস্থ হয়ে থাকতে পারেন। কোভশিল্ড নিরাপদ, জানিয়েছে ব্রিটেনের মেডিসিন বিভাগ। জানা গিয়েছে, ব্রিটেনের ওই স্বেচ্ছাসেবী স্নায়ুর রোগে আক্রান্ত।

কোভশিল্ডের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে ভারত-সহ ব্রিটেন, ব্রাজিল ও দক্ষিণ আফ্রিকায়। ইতিমধ্যে ক্যাডিলা ও ভারত বায়োটেকের টিকার প্রথম পর্বের ট্রায়াল সম্পন্ন হয়েছে। করোনা যেভাবে খেল দেখাচ্ছে তাতে মানবদেহে স্বদেশি ও বিদেশি টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ জরুরি বলছেন গবেষকরা। ‌‌

 

সুত্র: আজকাল.in

আরও পড়ুন ::

Back to top button