জাতীয়

অমিত শাহের প্রোফাইল ছবি সরাল ট্যুইটার!



কপিরাইটের গেড়োয় পড়লেন এবার স্বয়ং দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)। বৃহস্পতিবার রাতের দিকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অফিসিয়াল ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে গায়েব হয়ে যায় তাঁর প্রফাইল পিকচারটি। কপিরাইট লঙ্ঘনের অভিযোগেই এমন পদক্ষেপ করা হয়েছে বলে ট্যুইটারের পক্ষ থেকে জানানো হয়। যদিও এর কিছুক্ষণ পরেই স্বমহিমায় নিজের অ্যাকাউন্টের ছবিতে ফিরে আসেন শাহ।

ঘটনার সূত্রপাত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ। সেই সময় অমিত শাহের অফিসিয়াল ট্যুইটার অ্যাকাউন্টে প্রফাইল ছবিটি দেখা যাচ্ছিল না। ছবিতে ক্লিক করলেই ফুটে উঠছিল, “Media Not Displayed. This image hasbeen removed in response to a report from the copyright holder।” যা নিয়ে গেরুয়া শিবিরে মহা শোরগোল শুরু হয়ে যায়। কী কারণে অমিত শাহের প্রফাইল পিকচার গায়েব হল তা নিয়ে বিতর্ক দানা বাঁধে। যদিও এই ঘটনার কুড়ি মিনিটের মধ্যেই স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে ফের অমিত শাহের প্রফাইল ছবিটি সস্থানে ফিরিয়ে দেয় ট্যুইটার।

মাইক্রো ব্লগিং ওয়েবাসাইট ট্যুইটারের তরফে বিবৃতি দিয়ে জানান হয়, অমিত শাহের ছবিটির কপিরাইট যাঁর কাছে রয়েছে, তাঁর অভিযোগের প্রেক্ষিতেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর পরে এদিন সকালেই ট্যুইটার সূত্রে জানানো হয়েছে, অমিত শাহের প্রোফাইলটি বর্তমানে ঠিক ভাবে কাজ করছে। প্রফাইল ছবিটিও ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

আরও পড়ুন : তৃণমূলের উদ্যোগে বিজয়া সম্মেলন

অমিত শাহের টুইটারে দুই কোটি ৩০ লাখেরও বেশি ফলোয়ার রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পরে তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের দ্বিতীয় সবচেয়ে শক্তিশালী ব্যক্তি হিসাবে বিবেচিত হন। দেশের রাজনীতিকদের মধ্যে তিনি হলেন দ্বীতিয় জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া হোল্ডার। অমিত শাহর ট্যুইটার হ্যান্ডলে তাঁর ছবি ফেরায় হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছেন নেটিজেনরা। স্বস্তি ফিরেছে গেরুয়া শিবিরেও।

এদিকে উল্লেখ্য সম্প্রতি ট্যুইটার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বা বিসিসিআইয়ের অফিশিয়াল টুইটার হ্যান্ডেলের ডিপিও সরিয়ে দিয়েছিল। সেখানেও কপিরাইট লঙ্ঘনের কারণ দেখানো হয়েছিল। এদিকে গত ২২ অক্টোবর ট্যুইটারকে চিঠি দিয়েছিল কেন্দ্র। একাধিকবার জিওট্যাগিং-এ লেহের অবস্থান ভুলভাবে দেখানোর জন্যই কেন্দ্র হুঁশিয়ারি চিঠি দিয়ে জানায়, ভুল শুধরে না নিলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জিওট্যাগিংয়ে লেহকে চিনের জায়গা হিসেবে উল্লেখ করা নিয়েই বিতর্ক শুরু হয়েছিল। সেই ঘটনার পর অমিত শাহের ট্যুইটার থেকে ছবি উড়ে যাওয়া আবার নতুন বির্তকের ইজ্ঞিত দিয়েছে।

সুত্র : আজতক


Related Articles

Back to top button