জাতীয়

দেশে দৈনিক করোনা সংক্ৰমণ কমে ১.২০ লক্ষ, চিন্তায় রাখল মৃত্যুসংখ্যা

এক ধাক্কায় অনেকটাই নামল করোনার (COVID-19) গ্রাফ। শুক্রবারের তুলনায় শনিবার প্রায় ১২ হাজার কমল আক্রান্তের সংখ্যা। তবে বেড়েছে মৃত্যুর সংখ্যা। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে কোনওভাবেই মৃত্যুর সংখ্যায় লাগাম টানা যাচ্ছে না।

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Health Ministry) দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় গোটা দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ১ লক্ষ ২০ হাজার ৫২৯ জন। শুক্রবারের তুলনায় এদিন আক্রান্তের সংখ্যা অনেকটাই কমেছে। শুক্রবার আক্রান্ত হয়েছিলেন লক্ষ ৩২ হাজার ৩৬৪ জন।

তবে এদিন দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা অনেকটাই বেড়েছে। যেখানে শুক্রবার ২ হাজার ৭১৩ জনের মৃত্যু হয়েছিল সেখানে শনিবারের হিসাব বলছে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ হাজার ৩৮০ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থতার সংখ্য়াও এদিন অনেকটাই কমেছে। শুক্রবার সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছিলেন ২ লক্ষ ৭ হাজার ৭১ জন। আর এদিন সুস্থ হয়েছেন ১ লক্ষ ৯৭ হাজার ৮৯৪ জন। এই নিয়ে গত ২ দিন সুস্থতার সংখ্যা কমল দেশে।

এই মুহূর্তে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২ কোটি ৮৬ লক্ষ ৯৪ হাজার ৮৭৯ জন। গত কয়েকদিনের মতো এদিনও দেশে অ্যাক্টিভ করোনা রোগীর সংখ্যা কমেছে। এই গ্রাফ বেশ কয়েকদিন ধরেই ক্রমশ নিম্নমুখী। শুক্রবার ১৬ লক্ষ ৩৫ হাজার ৯৯৩ জন সক্রিয় করোনা রোগী ছিলেন দেশে। শনিবার সংখ্যাটা দাঁড়িয়েছে ১৫ লক্ষ ৫৫ হাজার ২৪৮-এ। এখনও পর্যন্ত দেশে মোট সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৬৭ লক্ষ ৯৫ হাজার ৫৪৯ জন। দেশের করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে ৩ লক্ষ ৪৪ হাজার ৮২ জনের। মোট ২২ কোটি ৭৮ লক্ষ ৬০ হাজার ৩১৭ জনকে এখনও পর্যন্ত ভ্যাকসিন দেওয়া সম্ভব হয়েছে।

এদিকে আন্তর্জাতিক মেডিক্যাল জার্নাল ল্যানসেট তাঁদের গবেষণায় দাবি করেছে, করোনা আক্রান্ত হলে আগামী ১০ মাসের মধ্যে দ্বিতীয়বার সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা ৬০ শতাংশ কম। জানা গিয়েছে, ২০০০ জনের উপর এই সমীক্ষা চালানো হয়েছিল। অ্যান্টিবডি পরীক্ষার মাধ্যমে তাঁদের ওপর নজর রাখা হয়েছিল। আবাসিক ও কর্মীদের প্রায় এক-তৃতীয়াংশের শরীরে অ্যান্টিবডি টেস্টের ফল পজিটিভ এসেছে। যার থেকে তাঁদের আগে করোনা আক্রান্ত হওয়ার তথ্য মেলে।

সুত্র : কলকাতা *৭

আরও পড়ুন ::

Back to top button