বলিউড

বৈবাহিক শারীরিক সম্পর্ক ‘ধর্ষণ’ নয়, ক্ষোভ তাপসীর

স্ত্রীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে শারীরিক সম্পর্ক ধর্ষণ নয় বলে রায় দিয়েছেন ছত্রিশগড় হাইকোর্ট। আদালতের এমন রায়ে টুইটারে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী তাপসী পান্নু। টেলিভিশনে প্রচারিত একটি খবর শেয়ার করে তিনি লিখেছেন, ‘ব্যস, এতদিন এটাই শোনা বাকি ছিলো।’

হাইকোর্টের রায়ে বলা হয়, বৈবাহিক সম্পর্কে স্ত্রীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে স্বামীর বলপূর্বক শারীরিক সম্পর্ক অপরাধ নয়। সেটিকে ‘ধর্ষণ’ বলে আখ্যা দেয়া যায় না।

এক সংবাদমাধ্যমে বলা হয়, ছত্রিশগড়ের এক বাসিন্দার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারার অধীনে অভিযোগ করা হয়েছিল। সেই ঘটনার জেরেই এমন সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন হাইকোর্ট। এমনকি অভিযুক্ত সেই ব্যক্তিকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে। গেলো ২৩ আগস্ট হাইকোর্টের বিচারক এনকে চন্দ্রবংশী এই রায় ঘোষণা করেন।

আরো পড়ুন : মাদক কাণ্ডে গ্রেপ্তার অভিনেতা আরমান কোহলি, বাড়ি থেকে বাজেয়াপ্ত প্রচুর নেশার সামগ্রী

এদিকে তাপসী পান্নুর টুইটের পর এ রায়ের বিরুদ্ধে অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। তার পোস্টেও প্রায় দেড় হাজার মন্তব্য করেছে নেটাগরিকরা।

অথচ এর আগে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ইস্যুতে দেশের বিচারব্যবস্থার ওপর আস্থা রাখতে এক টুইটে তাপসী জানিয়েছিলেন, ‘আমি সুশান্ত সিং রাজপুতকে ব্যক্তিগতভাবে চিনি না। ব্যক্তিগতভাবে চিনি না রিয়া চক্রবর্তীকেও। তারা উভয়েই আমার সহকর্মী।

আমি নিজের নৈতিক জায়গা থেকে আর চুপ থাকতে পারলাম না। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যার অ্যাকাউন্ট আছে, সে–ই একজন ‘জজ’ বনে গেছে। আর ইচ্ছেমতো নিজের রায় জানিয়ে দিচ্ছে। আপনারা বরং দেশের বিচারব্যবস্থার ওপর আস্থা রাখুন। যার কাজ তাকে করতে দিন।’

আরো পড়ুন : শাহরুখের দেহরক্ষীর বেতন কত জানেন! জানলে চোখ কপালে উঠবে

প্রসঙ্গত, গত ২ জুলাই তাপসী পান্নু ও বিক্রান্ত ম্যাসে অভিনীত ‘হাসিন দিলরুবা’ নেটফ্লিক্সে মুক্তি পায়। সিনেমাটি দর্শক ও চিত্র সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছে। সিনেমাটির চিত্রনাট্য লিখেছেন বলিউডের জনপ্রিয় চিত্রনাট্যকার কণিকা ধীলন। খুনের রহস্য নিয়ে নির্মিত এ সিনেমায় আরও অভিনয় করেছেন হর্ষবর্ধন রানে। তাপসী পান্নুর হাতে রয়েছে বেশ কয়েকটি সিনেমা—রশ্মি রকেট, সাবাশ মিতু, ব্লার, লুপ লাপেতা ও দোবারা।

এছাড়াও ফ্যাশন সেন্সের কারণে বহু বার শিরোনামে এসেছেন এই অভিনেত্রী।

আরও পড়ুন ::

Back to top button