জাতীয়

ধর্ষণ কাণ্ডের নির্যাতিতার ছবি আপলোড, বিপাকে বিজেপি নেতা !

ধর্ষণ কাণ্ডের নির্যাতিতার ছবি আপলোড, বিপাকে বিজেপি নেতা !

তেলেঙ্গানার হায়দ্রাবাদে নাবালিকা গণধর্ষণের ঘটনার ফলে ক্রমবর্ধমান বিতর্কের মধ্যেই বিজেপি বিধায়ক রঘুনন্দন রাও। নির্যাতিতা এবং একজন যুবকের কিছু ছবি এবং একটি ভিডিও ক্লিপ সোশ্যাল মিডিয়াতে আপলোড করেছেন। আর ওই ছবি এবং ভিডিও ক্লিপটিতে থাকা যুবকটি কোনও আইমিম বিধায়কের ছেলে কিনা তা স্পষ্ট করার জন্য পুলিশকে অনুরোধ করেছেন।

এই বিষয়ে তিনি জানিয়েছেন,”একজন বিধায়ক হিসাবে, অপরাধের তদন্ত করা আমার কাজ নয়। কিন্তু, যেহেতু আমাকে প্রমাণ দেওয়ার জন্য চ্যালেঞ্জ করা হয়েছিল, তাই এটি দিলাম আমি।”

তিনি আরও জানান,” একজন আইনজীবী হিসাবে, আমি সচেতন যে অপ্রাপ্তবয়স্করা এই ধরনের মামলায় জড়িত হলে সেখানে বিধিনিষেধ রয়েছে। ক্লিপ থেকে নাবালিকা মেয়েটির পরিচয় বের করা যাবে না তবে আপনি বিধায়কের ছেলেকে স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছেন। যদি এই প্রমাণ যথেষ্ট না হয়, তাহলে আমি ডিজিপিকে গাড়িতে থাকা সমস্ত অভিযুক্তদের কিছু ফটোগ্রাফ সহ সম্পূর্ণ ভিডিও সরবরাহ করতে পারি।”

তবে, পুলিশ এখনও পর্যন্ত জানিয়েছে যে আইমিম বিধায়কের ছেলে এই ঘটনার সময় উপস্থিত ছিলেন না। বিজেপি বিধায়ক রঘুনন্দন রাও পুলিশকে প্রশ্ন করেছেন কেন বিধায়কের ছেলের নাম অভিযুক্তদের মধ্যে রাখা হয়নি। তিনি আরও বলেছিলেন যে অপরাধে আইমিম বিধায়কের ছেলের জড়িত থাকার প্রমাণস্বরূপ তাঁর কাছে আরও প্রমাণ রয়েছে।

হায়দ্রাবাদ পুলিশ শনিবার এই মামলায় দুই কিশোরকে গ্রেফতার করেছে। যেহেতু এই ঘটনায় অভিযুক্ত কিশোরদের মধ্যে একজনকে ক্ষমতায় থাকা একজন নেতার ছেলে বলে অভিযোগ করা হয়েছে এর ফলে বিরোধী বিজেপি এবং কংগ্রেস সিবিআই তদন্তের জন্য তাদের দাবি করেছে।

তেলেঙ্গানা কংগ্রেসের ইনচার্জ এবং সাংসদ, মানিকম ঠাকুর, রঘুনন্দন রাওকে ওই নাবালকের ছবি সহ ভিডিও প্রকাশ করার জন্য নিন্দা করেছেন।

এই বিষয়ে তিনি নিজের বক্তব্য পোষণ করে বলেছেন, “ধর্ষণ মামলার অভিযুক্তদের একজন আইমিম (অল ইন্ডিয়া অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমীন) বিধায়কের ছেলে বলে অভিযোগ রয়েছে। ভিডিওটি প্রকাশ করার মাধ্যমে, রঘুনন্দন ঘটনার নির্যাতিতা এবং তাঁর পরিবারের নিরাপত্তা উভয়ই আপস করেছেন। এটা কি টিআরএস, বিজেপি এবং এমআইএম-এর মধ্যে অপবিত্র যোগসূত্রের জন্য? তাদের বন্ড কি নাবালিকা মেয়ের প্রতি ন্যায়বিচারের চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ?”

ইতিমধ্যেই চিহ্নিত পাঁচ অভিযুক্তের মধ্যে, ১৮ বছর বয়সী একজনকে ৩ জুন গ্রেফতার করা হয়েছিল। এই মামলায় এখনও পর্যন্ত দুই কিশোর সহ মোট তিনজনকে হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

সুত্র: মহানগর ২৪*৭

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button