অর্থনীতি

পোস্ট অফিসের এই স্কিমে বিনিয়োগ করলে প্রতি মাসে মিলবে ২,৫০০ টাকা, বিস্তারিত জেনে নিন

বেতনভোগী মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষের জন্য সহজ ব্যাঙ্কিং পদ্ধতি হল পোস্ট অফিস পরিষেবা (Post Office Scheme)। উচ্চ সুদের হারের কারণে মানুষ পোস্ট অফিসে (Post Office Scheme) বেশি পরিমাণে বিনিয়োগ করে থাকেন। কেন্দ্রীয় সরকার সম্প্রতি কম সঞ্চয় হারের উপর একটি সেভিংস প্রোগ্রাম চালু করেছে। এর মধ্যে রয়েছে এমআইএস বা মাসিক ইনকাম অ্যাকাউন্টের সুবিধা। সরকার সুদের হার ৬.৬ শতাংশ ঘোষণা করলেও পোস্ট অফিসের অ্যাকাউন্টে সুদের হার অন্যান্য ব্যাঙ্কের তুলনায় বেশি।

উচ্চ সুদের হারের জন্য পোস্ট অফিস বিনিয়োগকারীদের একাধিক সুবিধা দিয়ে থাকে। এর মধ্যে মাসিক ইনকাম অ্যাকাউন্ট একটি ভাল স্কিম। পোস্ট অফিসের (Post Office Scheme) এই মাসিক আয় স্কিমটি (MIS account) গ্রাহকদের অর্থ বিনিয়োগের সুযোগ দেয়। তবে পোস্ট অফিসের এই স্কিমটিতে সুদের হার সব সময় সমান থাকে না। বিনিয়োগকারীদের সুদের হার মাঝেমধ্যেই ওঠা নামা করে বলে জানায় পোস্ট অফিস কর্তৃপক্ষ।

আগ্রহী বিনিয়োগকারী, যারা এমন একটি অ্যাকাউন্ট খুলতে চান, তাদের অ্যাকাউন্ট খুলতে ন্যূনতম 1,000 টাকা জমা রাখতে হবে। পোস্ট অফিসের নিয়ম অনুসারে এই এক হাজার টাকা জমা করতে হবে৷ এই নিয়মটি ১ এপ্রিল, ২০২০ থেকে কার্যকর হয়েছে৷ একটি একক অ্যাকাউন্টের জন্য সর্বোচ্চ বিনিয়োগ সীমা ৪.৫ লক্ষ টাকা এবং যৌথ অ্যাকাউন্ট গুলির জন্য ৯ লক্ষ টাকা৷

একজন অভিভাবক তাঁর সন্তানের জন্য পোস্ট অফিসে একটি এমআইএস অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন। তবে ১০ বছরের বেশি বয়সী একজন পড়ুয়া তার নিজের নামে একটি অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবে। আপনি যদি নিজের একটি অ্যাকাউন্ট খোলেন, এবং সেখানে ২ লক্ষ টাকা জমা করেন, তাহলে আপনি বর্তমান বার্ষিক সুদের হারে প্রতি মাসে ১,১০০ টাকা পাবেন৷ আপনি যদি সন্তানের নামে ৩.৫০ লক্ষ টাকা জমা করেন তবে আপনি ১,৯২৫ টাকা সুদ পাবেন। আপনি যদি সর্বোচ্চ ৪.৫ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করেন, আপনি প্রতি মাসে ২,৪৭৫ টাকা সুদ পাবেন। পোস্ট অফিসে এমআইএস অ্যাকাউন্ট খোলার তারিখ থেকে পাঁচ বছর পরে সংশ্লিষ্ট পোস্ট অফিসে পাস বই সহ নির্ধারিত আবেদনপত্র জমা দিয়ে এই অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা যেতে পারে।

আরও পড়ুন ::

Back to top button