রাজ্য

এবার থেকে ৬০ পেরলেই পাবেন বার্ধক্য ভাতা! বিস্তারিত জানুন

এবার থেকে ৬০ পেরলেই পাবেন বার্ধক্য ভাতা! বিস্তারিত জানুন

আজ, শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে রাজ্যব্যাপী দুয়ারে সরকার কর্মসূচি। এবার দু’টি কারণে তাৎপর্যপূর্ণ হতে চলেছে রাজ্যের এই দুয়ারে সরকার ক্যাম্প৷ এক নম্বর, এবার থেকে ৬০ বছর ঊর্ধ্ব যে কোনও ব্যক্তিই বার্ধক্য ভাতার জন্য আবেদন জানাতে পারবেন৷ অর্থাৎ, এবার রাজ্যের সমস্ত ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তিকে ভাতার আওতায় আনল রাজ্য৷ দ্বিতীয়, এই দফাতেই পরিযায়ী শ্রমিকেরা নিজেদের নাম ঠিকানা সব নথিভুক্ত করতে পারবেন রাজ্যের খাতায়৷

মূলত, ১ সেপ্টেম্বর থেকে ১৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন আবেদন নেওয়া হবে ক্যাম্পের মাধ্যমে। ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেওয়া হবে দুয়ারে সরকার কর্মসূচির পরিষেবা। পাশাপাশি, বুথ ভিত্তিক দুয়ারে সরকার ক্যাম্প করা হবে বলেও এদিন জানানো হয়েছে নবান্নের তরফে।

এতদিন পর্যন্ত উপজাতি সম্প্রদায়ের মানুষদের জন্য ‘জয় জহর’ এবং ‘তফশিলি বন্ধু’ প্রকল্পের আওতায় ৬০ বছরের বেশি বয়সি প্রবীণদের ১০০ শতাংশ ভাতা দিত রাজ্য সরকার৷ সমাজের সকল স্তরের মানুষের জন্য এই সুবিধা উপলব্ধ ছিল না৷ কিন্তু, এবারের দুয়ারে সরকার ক্যাম্প থেকে সমস্ত প্রবীণ মানুষদের জন্যই চালু হল এই বার্ধক্য ভাতা৷

প্রত্যেকটি দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে রাখা থাকবে হেল্প ডেস্ক। পাশাপাশি, রাজ্যের তরফে হেল্পলাইন নম্বরও চালু করা হয়েছে দুয়ারে সরকারের জন্য। ১৮০০৩৪৫০১১৭/ ০৩৩২২১৪০১৫২ সহ আরও ১৫ টি লাইন থাকবে বলে জানানো হয়েছে নবান্নের তরফে।

এবারের দুয়ারে সরকার কর্মসূচিতে মোট চারটি নতুন প্রকল্প যুক্ত হয়েছে। বার্ধক্য ভাতা, পরিযায়ী শ্রমিকদের রেজিস্ট্রেশন, সহ আরও দুটি নতুন প্রকল্প। শুক্রবার থেকে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প। বৃহস্পতিবার এ নিয়ে মুখ্যসচিব বিভিন্ন জেলার জেলাশাসকদের সঙ্গেও ভার্চুয়াল বৈঠক করেন।

গত বৃহস্পতিবার রাজ্যের মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদি জানিয়েছেন, দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প থেকে প্রত্যেকবারের মতো এবারও মোট ৩৫টি সরকারি পরিষেবা পাওয়া যাবে। প্রত্যেকটি দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে থাকছে আলাদা করে অভিযোগ জানানোর জায়গা। দুয়ারে সরকার কর্মসূচি নিয়ে কারোর কোনও অভিযোগ জানানোর থাকলে তা লিখে সেই বাক্সে ফেলে দিতে পারবেন বলে জানিয়ে দিয়েছেন মুখ্যসচিব। পরে সেই অভিযোগ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করা হবে৷

পাশাপাশি, এবারের দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে কোনও ভাবে যাতে কোনও অব্যবস্থা না হয়, তার নজরদারি করতে থাকছে ৪১ জন সিনিয়র আইএএস অফিসার। রাজ্যের তরফে পাঁচটি ডিভিশনের জন্য মোট ৪১ জন আইএএস অফিসারকে দুয়ারে সরকার প্রকল্পে নজরদারি করার জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। যার মধ্যে একাধিক জেলায় সাব ডিভিশন ভাগ করে দেওয়া হয়েছে।

যে অঞ্চলগুলিতে পৌঁছনো তুলনামূলকভাবে কষ্টকর সেই অঞ্চলগুলিতে যাতে মোবাইল ভ্যান এর মাধ্যমে পরিষেবা দেওয়া যায় সে বিষয়েও জেলাশাসকদের বিশেষ নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যসচিব। গত বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে মুখ্য সচিব বলেছেন, “বাড়ির কাছাকাছি, এলাকার কাছাকাছি যাতে ক্যাম্প করা যায়, সেই বিষয়ে দেখা হচ্ছে।”

 

 

সুত্র: নিউজ ১৮ বাংলা

আরও পড়ুন ::

Back to top button