রাজনীতিরাজ্য

পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় আসতে কোমর বেঁধে নেমেছে বিজেপি

বিজেপি সভাপতি জেপি নাড্ডা

আর কয়েক মাস পর পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই নির্বাচনে দলকে রাজ্যের ক্ষমতায় আনতে কোমর বেঁধে নেমেছে কেন্দ্রের শাসক দল ভারতীয় জনতা পার্টি বিজেপি। আর এজন্য সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বা সিএএ-কে নিজেদের অন্যতম হাতিয়ার হিসেবে বেছে নিয়েছে দলটি।

সোমবার শিলিগুড়িতে এক জনসভায় সে বুঝিয়েও দিলেন বিজেপি সভাপতি জেপি নাড্ডা। এদিন তিনি বলেন, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বা সিএএ কার্যকর করা সম্ভব হয়নি। তবে শিগগিরই তা কার্যকর করা হবে বলে জানান তিনি।

জেপি নাড্ডা বলেন, সিএএ তো আগেই পাস হয়েছে। এখন শুধু সেটা কার্যকর করলেই হলো। এর জন্য আইনের বিধিও তৈরি করা হচ্ছিল। কিন্তু করোনার কারণে সেই কাজে ব্যাঘাত ঘটেছে। এই মহামারির প্রভাব কমলেই বিধি তৈরির কাজ সম্পূর্ণ হয়ে যাবে। আর আপনারাও খুব তাড়াতাড়ি এর সুবিধা পাবেন।

আরও পড়ুন: পূর্ব মেদিনীপুরের পটাশপুরে বিজেপি করার অপরাধে হুমকি তৃণমূলের

বিজেপি সভাপতি এদিন শুধু সিএএ কার্ডই খেলেননি, পাশাপাশি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির বিরুদ্ধে বিভাজনের রাজনীতিরও অভিযোগ তোলেন। তিনি বলেন, আমরা সবার ভালো চাই।

সবাইকে নিয়ে চলার ক্ষমতা একমাত্র আমাদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিজীরই আছে। কিন্তু মমতা দিদির সরকার বিভাজনের রাজনীতি করে পশ্চিমবঙ্গকে ভাগ করতে চাইছে।

জেপি নাড্ডা আরও বলেন, দেশজুড়ে কেন্দ্রীয় সরকার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্প নিলেও সেগুলো এই রাজ্যে চালু করতে দেয়া হয়নি। রাজনীতির স্বার্থে গরিব কল্যাণে বাধা দেয়া হয়েছে। রাজ্যের শাসকদলের জেদের ফলে কৃষকনিধি সম্মান, আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের সুবিধা পাননি এখানকার মানুষ।

মানুষজনের কি কি দাবি-দাওয়া আছে সেগুলোর তালিকা দিতেও বলেন বিজেপি সভাপতি। তিনি বলেন, আমি আপনাদের বলছি পশ্চিমবঙ্গে যা হয়নি তার তালিকা দিন। মোদি সরকার সব পূরণ করবে। আমরা এই রাজ্যের ক্ষমতা এলে এক মাসের মধ্যে চালু হবে আয়ুষ্মান ভারত।

 

আরও পড়ুন ::

Back to top button