অর্থনীতি

এমপাওয়ার – দ্য সেন্টার, কলকাতা, মৃত্যুশোক কাটিয়ে ওঠার জন্য ফ্রি ভার্চুয়াল কোভিড সহায়ক গোষ্ঠী গঠনের উদ্যোগ নিল

এমপাওয়ার – দ্য সেন্টার, কলকাতা, মৃত্যুশোক কাটিয়ে ওঠার জন্য ফ্রি ভার্চুয়াল কোভিড সহায়ক গোষ্ঠী গঠনের উদ্যোগ নিল - West Bengal News 24

কলকাতা, জুলাই ২৭, ২০২১: এই অভূতপূর্ব সময়ে এমন কথাবার্তা অনেক বেশি শোনা যাচ্ছে, যা মানসিক বিপ্পনতার লক্ষণ, যেমন…. “আমি তাকে বিদায় জানানোর সুযোগটুকুও পেলাম না, “ওর এভাবে চলে যাওয়ার বয়সই হয়নি”, “আমি তাকে বাঁচাতে পারলাম না” ইত্যাদি।

এই পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে এমপাওয়ার – দ্য সেন্টার, কলকাতা, কষ্টে এবং মৃত্যুশোকে ভোগা মানুষকে সাহায্য করতে এগিয়ে এসেছে। বিনামূল্যে ভার্চুয়াল কোভিড সহায়ক গোষ্ঠীগুলোর মাধ্যমে সারা পশ্চিমবঙ্গের নাগরিক সুরক্ষিত পরিবেশে একত্রে নিজেদের অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিতে পারবেন ।

এই সহায়ক গোষ্ঠীগুলোর মাধ্যমে যে ব্যক্তিরা একইরকম যন্ত্রণার মধ্যে দিয়ে গেছেন, তাঁরা খোলাখুলি নিজেদের প্রকাশ করতে পারবেন, তাঁদের অভাব, অভিযোগ জানাতে পারবেন, নিজেদের লড়াই সম্বন্ধে এবং তা কীভাবে তাঁদের প্রভাবিত করছে তা নিয়ে কথা বলতে পারবেন।

এই গোষ্ঠীগুলোর মূল কাজ হল মানুষকে বোঝানো যে তাঁরা ওই পরিস্থিতিতে পড়া একমাত্র মানুষ নন, অন্যরাও একইরকম অনুভূতির শিকার, এবং এই অবস্থা কাটিয়ে উঠতে একে অপরকে সাহায্য করতে পারেন। এই সহায়ক গোষ্ঠীগুলো পরিচর্যাকারী, প্রথম সারির কর্মী এবং যারা আপনজনের মৃত্যুশোক পেয়েছেন তাঁদের সাহায্য এবং কাউন্সেলিং করবে।

এই উদ্যোগ সম্বন্ধে বলতে গিয়ে শ্রীমতি নীরজা বিড়লা, ফাউন্ডার অ্যান্ড চেয়ারপার্সন, এমপাওয়ার বললেন “প্রিয়জনের মৃত্যুতে শোক করা একদম স্বাভাবিক। কিন্তু একইসঙ্গে মনে রাখতে হবে ব্যাপারটা অপ্রতিরোধ্য হয়ে যেতে পারে এবং মানসিক সমস্যার সূচনা হয়ে দাঁড়াতে পারে। একমাত্র কথা বললে এবং আমাদের অভিজ্ঞতা অন্যের সাথে ভাগ করে নিলেই আমরা উপলব্ধি করি যে আমরা একা নই।

আমাদের সহায়ক গোষ্ঠীগুলোর মাধ্যমে আমরা ব্যক্তির জন্য এমন ফোরাম তৈরি করতে চাই যাতে তাঁরা একসাথে মানসিক সস্থির পথের এগোতে পারে ।

এই গোষ্ঠীগুলোর নেতৃত্বে থাকবেন এমপাওয়ার – দ্য সেন্টার, কলকাতার অভিজ্ঞ মনস্তত্ত্ববিদরা। তাঁরা প্রতি শনিবার ৩টে থেকে ৪টে পর্যন্ত সাপ্তাহিক সেশনের পরিকল্পনা করেছেন। এখন নিবন্ধন করুন https://forms.gle/2cbKx81vX1djVgNe8 or call on +9190735 55522

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button