টলিউড

এবার প্রসেনজিৎ-ঋতুপর্ণার দিকে আঙুল তুললেন অভিষেকের স্ত্রী

প্রসেনজিৎ-ঋতুপর্ণার দিকে আঙুল তুললেন অভিষেকের স্ত্রী

টলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা অভিষেক চ্যাটার্জির মৃত্যুতে নিস্তব্ধ হয়ে পড়েছে টলিপাড়া। তবে তাকে ঘিরে বেশ কিছু মিথ্যা খবরও চাউর হয়। যদিও পরবর্তীতে অভিষেকের স্ত্রী সংযুক্তা চ্যাটার্জি গুজবের জবাব দিয়েছেন। তবে এবার কারও নাম উল্লেখ না করেই প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জি ও ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের দিকে আঙুল তুললেন অভিষেকপত্নী।

রোববার (৩ এপ্রিল) অভিষের শ্রাদ্ধের দিন সংযুক্তা গণমাধ্যমকে জানান, ‘ওর (অভিষেক) মৃত্যুর পর পরিচিতজনরাই আমায় বলছিল, এক অভিনেতা নাকি আমাকে ১০ লাখ টাকা দিয়েছে। যে অভিনেতার কথা বলা হচ্ছে, সেই অভিনেতার সঙ্গে অভিষেকের সম্পর্ক ভালো ছিল না। এমনকি অভিষেকের ক্যারিয়ার শেষ করে দিতে সেই অভিনেতা অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছিল। আরও এক অভিনেত্রী নাকি আমাকে পাঁচ লাখ টাকা দিয়েছে। সেই অভিনেত্রীও অভিষেকের ক্যারিয়ার ধ্বংসের পেছনে কাজ করেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘অভিষেক খুব স্বচ্ছ মানুষ ছিল। ও নিজেও অনেক সাক্ষাৎকারে সেই অভিনেতা-অভিনেত্রীর সম্পর্কে বলেছে। তাই আমি আর তাদের নাম নিচ্ছি না।’

একটু থেমে অভিষেকপত্নী যোগ করেন, ‘যে সময় অভিষেক ক্যারিয়ারের শীর্ষে ছিল, সে সময় ২২টা ছবি থেকে তাকে সরিয়ে দিয়েছিল সেই অভিনেতা-অভিনেত্রী। আর তারা নাকি আমাকে অর্থ সাহায্য করেছে! ‘ব্যক্তিগতভাবে অর্থ সাহায্য তো দূরের কথা তারা শোকবার্তাও পাঠায়নি।’

সংযুক্তার ভাষ্য, ‘আমার যা বেতন, তা দিয়ে আমি তিনজনের সংসার চালাতে পারতাম। কিন্তু পরিবারের মাথা হিসেবে অভিষেকই খরচ চালাতো। এখনও আমাদের মেয়ের কোনো অসুবিধা হবে না। অভিষেক জীবনে কারও সামনে হাত পাতেনি। যখন ওকে ২২টা ছবি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে তখনও পাতেনি। আর আমি ওর স্ত্রী হিসেবে কারও সাহায্য নেব? কোনোদিনও না।’

প্রসঙ্গত, গেল ২৪ মার্চ ৫৭ বছর বয়সে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান এক সময়ের পর্দা কাঁপানো নায়ক অভিষেক চ্যাটার্জি। মৃত্যুর ১১ দিন পর গত রোববার (৩ এপ্রিল) তার শ্রাদ্ধ সম্পন্ন করেছেন স্ত্রী সংযুক্তা চ্যাটার্জি।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

আরও পড়ুন ::

Back to top button