সংগীত

মুখ‍্যমন্ত্রীকে কটুক্তি করায় গ্রেফতার রোদ্দুর রায়, বিষ্ফোরক মন্তব‍্য নচিকেতার!

মুখ‍্যমন্ত্রীকে কটুক্তি করায় গ্রেফতার রোদ্দুর রায়, বিষ্ফোরক মন্তব‍্য নচিকেতার!

বর্তমানে দৈনন্দিন জীবনের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গি ভাবে জড়িয়ে রয়েছে সোশ‍্যাল মিডিয়া। বাস্তব জগতের বাইরে নেটমাধ‍্যমেও একটা আলাদা দুনিয়া বানিয়ে বসে রয়েছেন নেটনাগরিকরা। সেখানে দুদিন অন্তর অন্তর নতুন বিত‍র্ক শুরু হয়। কিছুদিন আগেই কেকে কে নিয়ে রূপঙ্কর বাগচীর ভিডিও বার্তায় তর্ক বিতর্ক হয়েছিল, যার রেশ এখনো চলছে। এর মাঝেই আবার গ্রেফতার ইউটিউবার রোদ্দুর রায়কে নিয়ে জলঘোলা শুরু হয়েছে নেটপাড়ায়।

মতামত প্রকাশের মঞ্চ হল নেটমাধ‍্যম। কিন্তু নেটিজেনরা অনেক সময়েই ভুলে যান কোন মন্তব‍্যটা শোভনীয় আর কোনটা নয়। ফলাফল, নতুন নতুন বিতর্ক। ‘হু ইজ কেকে’ বলে বিতর্কের সূত্রপাত করেছিলেন রূপঙ্কর। ক্ষুব্ধ নেটিজেনরা তা কয়েক গুণ বাড়িয়ে দেন অশ্লীল কটাক্ষ করে।

আবার সম্প্রতি ইউটিউবার রোদ্দুর রায় গ্রেফতার হয়েছেন। মুখ‍্যমন্ত্রী মমতা বন্দ‍্যোপাধ‍্যয় সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব‍্যের জন‍্য গ্রেফতার করা হয়েছে ইউটিউবারকে। তাঁর গ্রেফতারি উচিত কি উচিত নয় তা নিয়েও চলছে শোরগোল। বিষয়টি নিয়ে এবার মন্তব‍্য করলেন বিশিষ্ট সঙ্গীতশিল্পী নচিকেতা চক্রবর্তী।

সম্প্রতি উত্তরবঙ্গ ঘুরতে গিয়েছিলেন তিনি। সেখানেই সংবাদ মাধ‍্যমের মুখোমুখি হয়ে বিষ্ফোরক মন্তব‍্য করেন নচিকেতা। টিভি নাইনকে তিনি স্পষ্ট জানান, সোশ‍্যাল মিডিয়ার কাণ্ডকারখানা সম্পর্কে খুব একটা কিছু বলার নেই তাঁর। কারণ তাঁর নিজের ফোনে সোশ‍্যাল মিডিয়া নেই। তবে নেটমাধ‍্যমকে তোপ দাগতে ছাড়েননি ‘রাজশ্রী’র স্রষ্টা।

তীক্ষ্ণ বাক‍্যবাণ চালিয়ে নচিকেতা বলেন, “সোশ‍্যাল মিডিয়া হল অশিক্ষিতদের চায়ের দোকানের মতো।” অর্থাৎ বাস্তব জীবনে চায়ের দোকানে যেমন হরেক রকম বিষয়ে আলোচনার তুফান ওঠে, সোশ‍্যাল মিডিয়াও তেমনি। শুধু নচিকেতার মতে, ওই দোকানটা শুধু অশিক্ষিতদের জন‍্য।

তবে সম্প্রতি রোদ্দুর রায়ের গ্রেফতারি নিয়ে কোনো মন্তব‍্য ক‍রতে চাননি নচিকেতা। কারণ তিনি জানান যে তিনি রোদ্দুরকে চেনেন না। কলকাতার বাইরে থাকার দরুণ তিনি কী বলেছেন তাও জানেন না। তবে বিতর্কিত কিছু বলে থাকলে আইন আইনের পথে হাঁটবে বলেও মন্তব‍্য করেছেন নচিকেতা।

 

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button