পশ্চিম মেদিনীপুর

রেলে চাকরি দেওয়ার নামে লক্ষাধিক টাকা আত্মসাৎ, তৃণমূল নেতাকে গাছে বেঁধে পিটুনি

লক্ষাধিক টাকা দিয়েও চাকরি মেলেনি এমন অভিযোগে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাকে গাছে বেঁধে মারলেন চাকরি প্রার্থী ও তার পরিবার। টাকা ফেরতের দাবিতে আজ শনিবার পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরা থানা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে

জানা যায়, আড়াই বছর আগে ডেবরা থানার মাড়াতলা এলাকার বাসিন্দা অরুণ হাঁসদাকে চাকরি দেওয়ার নাম করে ৫ লাখ টাকা নিয়েছিলেন স্থানীয় তৃণমূল নেতা দিলীপ পাত্র। একমাসের জন্য রেলের একটি প্রশিক্ষণেও পাঠান অরুণকে। কিন্তু প্রশিক্ষণ শেষে চাকরি হয়নি অরুণের। এরপর গ্রামে ফিরে টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য দিলীপকে চাপ দিতে থাকেন অরুণ। একের পর এক তারিখ দিলেও টাকা ফেরত দেননি দিলীপ।

অবশেষে আজ সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বালিচক গ্রামে দিলীপের বাড়িতে হানা দেন অরুণ ও তার পরিবারের কয়েকজন সদস্য। এ সময় দিলীপকে তুলে এনে মাড়াতলা উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রের পেছনের মাঠে গাছে বেঁধে রাখা হয়। দুপুর ১টা পর্যন্ত সেখানেই বেঁধে রেখে প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা ধরে তৃণমূলের এই নেতাকে মারধর করা হয়। এরপর খবর পেয়ে ডেবরা থানার পুলিশ এসে দিলীপ পাত্রকে উদ্ধার করে।

টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন তৃণমূলের এই শ্রমিক নেতা। পুলিশের সামনে ভুক্তভোগী ও অভিযুক্তের মধ্যে একটি চুক্তি হয়। তাতে আগামী ১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ১ লাখ টাকা ফেরত দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন দিলীপ। এরপর তাকে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। তবে এই ঘটনায় এখনও কোনো অভিযোগ দায়ের হয়নি।

আরও পড়ুন ::

Back to top button