রাজ্য

মা হতে চেয়েছিলেন অর্পিতা, সায় ছিল পার্থর, বিস্ফোরক দাবি ইডির

এবার পার্থ ও অর্পিতা মধ্যে সম্পর্কের নতুন সমীকরণ পেল ইডি। মা হতে চেয়েছিলেন প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়। আর এতে সায় ছিল প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রীরও। ইডির চার্জশিটে এমনই বিস্ফোরক দাবি করা হয়েছে।

ইডি সম্প্রতি পার্থ ও অর্পিতার বিষয়ে চার্জশিট জমা করেছে। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, মা হতে চেয়ে দত্তক নিতে রাজি হয়েছিলেন অর্পিতা মুখোপাধ্যায়। আর তার জন্য নো অবজেকশন সার্টিফিকেট দিয়েছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷

ইডির দাবি, যে সমস্ত নথি উদ্ধার করা হয়েছে সেখানে একটি নথি উদ্ধার করে ইডি৷ সেটি হল নো অবজেকশন সার্টিফিকেট৷

আইনজীবীদের মতে, কোনও মহিলা যদি দত্তক নিতে চান, তাঁর নো-অবজেকশন সার্টিফিকেট দরকার পড়ে না৷ তবে যদি কোনও মহিলা বৈবাহিক বন্ধনে থাকেন, তা হলেই তাঁর স্বামীর নো-অবজেকশন সার্টিফিকেট দরকার হয়৷ স্বাভাবিকভাবে প্রশ্ন উঠছে, তাহলে দুজনের মধ্যে কি সম্পর্ক ছিল?

আরও পড়ুন :: রাজ্যে তুমুল বৃষ্টির পূর্বাভাস, পশ্চিমবঙ্গের ওয়েদার আপডেট এক ঝলকে

উল্লেখ্য, ২৩ জুলাই অর্পিতার টালিগঞ্জের ফ্ল্যাটে তল্লাশির সময় ২০ কোটি নগদ-সহ বেশ কিছু নথি উদ্ধার করেছে ইডি। উদ্ধার হওয়া নথির মধ্যে এমন একটি চিঠি পাওয়া গিয়েছে বলে দাবি ইডির, যেখানে অর্পিতার সন্তান দত্তক নিতে চাওয়ার ইচ্ছে এবং সেই বিষয়ে মন্ত্রী হিসেবে পার্থর শংসাপত্র দেওয়ার উল্লেখ রয়েছে। তার ভিত্তিতে জেরা করা হয় পার্থ ও অর্পিতাকে।

এতেই গোয়েন্দারা নিশ্চিত যে, শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় অভিযুক্ত অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের মা হওয়ার ইচ্ছে হয়েছিল। সেইমতো সন্তান দত্তক নিতে চেয়েছিলেন তিনি। আর তার এই ইচ্ছে পূরণের জন্য সুপারিশ চিঠি লিখে দিয়েছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। জেরার সময় পার্থকে সেই চিঠি দেখিয়ে প্রশ্ন করেন ইডি-র আধিকারিকরা। জবাবে পার্থর দাবি, জনপ্রতিনিধি হিসেবে তিনি ওই সুপারিশের চিঠি লিখেছিলেন।

আরও পড়ুন ::

Back to top button