রাজ্য

“পুনঃ বিবেচনা করুন – নৈতিকতা ও বাস্তবতা মানুন”- দণ্ড সংহিতা নিয়ে মোদীকে চিঠি দিলেন মমতা

ওয়েস্ট বেঙ্গল নিউজ ২৪

"পুনঃ বিবেচনা করুন - নৈতিকতা ও বাস্তবতা মানুন"- দণ্ড সংহিতা নিয়ে মোদীকে চিঠি দিলেন মমতা

দেশের ফৌজদারি বিচার পদ্ধতির খোলনলচে বদলে দেওয়ার নতুন তিনটি আইন নিয়ে আবার প্রশ্ন তুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখে ওই তিন আইন পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়েছেন তিনি। চিঠিতে মমতা লিখেছেন, ‘‘গত ডিসেম্বরে সংসদের দুই কক্ষের ১৪৬ জন সাংসদকে বহিষ্কারের পর যে স্বৈরাচারী পদ্ধতিতে ওই তিনটি বিল পাশ করানো হয়েছিল, তা ভারতীয় গণতন্ত্রের ইতিহাসে একটি কালো দাগ। এখন তা পুনর্বিবেচনার প্রয়োজন।’’

আগামী ১ জুলাই থেকে ওই তিন আইন কার্যকর হওয়ার কথা। তার আগে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রীর এই চিঠি ‘তাৎপর্যপূর্ণ’ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশ। গত বছরের গোড়ায় মোদী সরকার দণ্ড সংহিতা আইনের খসড়া প্রকাশ্যে আনার পরেই মমতা তার বিরোধিতা করে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছিলেন। বলেছিলেন, ‘‘কেন্দ্রের প্রচেষ্টার মধ্যে চুপিসারে অত্যন্ত কড়া এবং কঠোর নাগরিক বিরোধী বিধি প্রবর্তনের একটি গুরুতর প্রচেষ্টা রয়েছে।’’

তিনি আরও বলেছিলেন, ‘‘আগে রাষ্ট্রদ্রোহ আইন ছিল। তা প্রত্যাহারের নাম করে, তারা (কেন্দ্রীয় সরকার) প্রস্তাবিত ভারতীয় ন্যায় সংহিতায় আরও কঠোর এবং স্বেচ্ছাচারী ব্যবস্থা চালু করতে চাইছে, যা নাগরিকদের আরও মারাত্মক ভাবে প্রভাবিত করতে পারে।’’ বৃহস্পতিবারের চিঠিতে মমতা লিখেছেন, ‘‘দেশের নাগরিকদের অনেকের মনেই এই আইন নিয়ে সংশয় রয়েছে।’’

মমতা লিখেছেন, ‘‘নৈতিকতার দিক থেকে আমি মনে করি, সংসদীয় ব্যবস্থার স্বচ্ছতা এবং বিশ্বাসযোগ্যতার কথা ভেবে নবনির্বাচিত লোকসভার সদস্যদের তাঁদের আমলে কার্যকর হওয়া আইন নিয়ে বিতর্কে অংশ নেওয়ার সুযোগ দেওয়া উচিত।’’

তিনি আরো বলেন , মুখ্যমন্ত্রী তাঁর চিঠিতে প্রধানমন্ত্রীকে মনে করিয়ে দিয়েছেন, ‘নৈতিকতা এবং বাস্তবতা’ যাচাই করে পুরো প্রক্রিয়া পুনর্বিবেচনা করা হোক। ব্যাখ্যা দিয়ে তিনি লিখেছেন, বিদায়ী লোকসভায় যে ভাবে কোনও আলোচনা ছাড়াই দ্রুত বিল তিনটি পাশ করানো”।

আরও পড়ুন ::

Back to top button