কলকাতা

সল্টলেক থেকে রাজারহাটের মস্ত ফ্ল্যাটে বাসাবদল করে এখন প্রশ্নের মুখে দিলীপ !

সল্টলেক থেকে রাজারহাটের মস্ত ফ্ল্যাটে বাসাবদল করে এখন প্রশ্নের মুখে দিলীপ !

 

ওয়েবডেস্ক :: কলকাতা, নিরাপত্তারক্ষীর সংখ্যা বাড়তে বাড়তে এখন ২২। তাঁদের ঠাঁই দিতে দোতলা বাড়িও কম পড়ে যায় । সেই সঙ্গে রয়েছেন ড্রাইভার। সব মিলিয়ে আরও বেশি ঘরের প্রয়োজন। তাই বাসাবদল। সল্টলেক ছেড়ে রাজারহাটের প্রান্তে উঠে আসার ব্যাখ্যা এভাবেই দিচ্ছেন দিলীপ ঘোষ।

দিলীপের কথায়, “জীবনে এটা আমার পঁচিশ নম্বর বাড়ি, জীবন এভাবেই কেটেছে।” দিলীপ বাবু আরও বলছেন ” এই সরকার আমার ওপর বারে বারে আক্রমণ করছে।

তাই আমার দল মনে করেছে আমার আরও নিরাপত্তা দরকার। তারাই সে সবের সুপারিশ করেছে। তাই বেশি ঘরের দরকার হয়ে পড়ল। একজন এসে বললেন তাঁর বাড়ি ফাঁকা আছে। যেন আমি সেটা ব্যবহার করি। তাই উঠে এলাম।”

এ দিকে রাজারহাটের জোত ভিম অঞ্চলের এই অমনি তুলসী এপার্টমেন্টে দিলীপবাবু ওঠার পরই , সেখানে যান হিডকো কর্তারা । এপার্টমেন্ট র প্ল্যান এ কিছু ত্রুটির কথা উল্লেখ করেন।

দিলীপবাবু এই বিষয়ে বৃহস্পতিবার বলেন “আমি আসার পরই সব তত্‍পরতা শুরু হয়ে গেল। এই বাড়িতে অনেক জৈন গুরুরা থেকে গেছেন। থাকতে বলেছে থাকছি । বাড়ির কাগজপত্রের আমি কি জানি ।”

সূত্রের খবর, সল্টলেকের বাড়ি ছাড়ার কারণ হিসেবে আরও একটা সমস্যা ছিল জলের সংকট। অনেকসময় নিরাপত্তারক্ষীদের স্নানের সমস্যা হচ্ছিল।

দিলীপ‌বাবু নিজে এ নিয়ে মুখ না খুললেও তাঁর ঘনিষ্ঠরা বলছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রদপ্তর নিরাপত্তা বাড়ানোর পরই ওই বাড়িতে থাকা অসম্ভব হয়ে পড়েছিল। তাই বাসা বদলের সিদ্ধান্ত শেষমেশ । এক দিলীপ ঘনিষ্ঠর কথায়, “দিলীপদার জীবনটাই এমন , মুসাফির হু ইয়ারও , না ঘর না ঠিকানা ।”

 

 

 

সুত্র: News18

 

 

 

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button