জাতীয়

ইন্দোরের কিশোর ডিম বিক্রেতার পাশে গোটা দেশ, মিলল ফ্ল্যাট ও পড়াশোনায় সাহায্যের আশ্বাস

১৩ বছরের কিশোর বিক্রেতার কোনও মিনতি শোনেনি। মাত্র ১০০ টাকা ঘুষের জন্য ভ্যান উল্টেছিল সিভিক পুলিশ। সেই ভিডিও ভাইরাল হতেই একের পর এক সাহায্য এসে পৌঁছল ইন্দোরের সেই পারস রায়করের দরজায়।

কেউ দিলেন বিনামূল্যে ফ্ল্যাট। কেউ পড়াশোনার করানোর দায়িত্ব নিলেন। সাহায্যের হাত বাড়ালেন রাহুল গান্ধী এবং দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

করোনা নিয়ন্ত্রণের জন্য রোজ সব দোকান খোলার অনুমতি নেই ইন্দোরে। ‘‌বাম-ডান’‌ নীতি মেনে নির্দিষ্ট সংখ্যক দোকান খোলা হচ্ছে। সেই নিয়ম ভেঙে ডিমের ঠেলা নিয়ে রাস্তার ধারে বসছিল পারস।

[ আরও পড়ুন : এবার উত্তরাখণ্ডের অংশ দাবি নেপালের, চলছে অবকাঠামো নির্মাণ ]

করোনার কারণে বিক্রি কমে গেছে। সংসারের খরচ জোগাতে বাধ্য হয়েই নিয়ম ভেঙে ডিম বিক্রি করছিল সে। ভিডিওতে সে জানায়, সকালে এসে সিভিক পুলিশ তার থেকে ১০০ টাকা ঘুষ চায়। বলে, না দিলে ঠেলা তুলে দেবে। সেই টাকা পারস না দেওয়ায় ডিম ভর্তি ঠেলা উল্টে দেয় সিভিক পুলিশ।

সেই ভিডিও ভাইরাল হয়। কাঠগড়ায় দাঁড়ায় মধ্যপ্রদেশের বিজেপি সরকার এবং পুলিশ। সব ডিম ভেঙে যাওয়ায় কিশোর বিক্রেতা আরও বিপাকে পড়ে। এর পরেই পাশে দাঁড়ান ইন্দোরের বিজেপি বিধায়ক রমেশ মেন্ডোলা।

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় পারসের পরিবারকে ফ্ল্যাট দেন। মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দিগ্বিজয় সিং পারস এবং তার ভাইয়ের পড়াশোনার দায়িত্ব নেন। ইন্দোর প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে কিশোরের পরিবারকে নগদ টাকা আর রেশন পাঠানো হয়।

[ আরও পড়ুন : চীনকে হটাতে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ৪০০ মিলিয়ন ডলারের চুক্তি করল ভারত ]

রাহুল গান্ধীর দপ্তর থেকেও যোগাযোগ করা হয়েছে ওই পরিবারকে। সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এবং বিজেপি সাংসদ জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া।

সুত্র: আজকাল.in

আরও পড়ুন ::

Back to top button