দঃ ২৪ পরগনা

বিজেপির সভায় জনসমুদ্রে ভেসে গেল গঙ্গাসাগর রুদ্রনগর

রবীন মজুমদার

দক্ষিণ ২৪ পরগনা: দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার অন্তর্গত গঙ্গাসাগরে আজ ভারতীয় জনতা পার্টির মথুরাপুর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি দীপঙ্কর জানার নেতৃত্বে একটি জনসভার আয়োজন করা হয়। এই সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় জনতা পার্টির মহিলা মোর্চার প্রদেশ সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পল। সবার শুরুতেই অগণিত মানুষের ঢল নেমে পড়ে।

অগ্নিমিত্রা পাল বলেন বাংলার যুবকদের মমতা ব্যানার্জি চাকরি না দিতে পারায় ক্লাবে ক্লাবে টাকা দিয়ে তাদের কোমর ভেঙে দিচ্ছেন। ক্লাবে ক্লাবে টাকা দেওয়ার মানে এই যে তারা মদ বিভিন্ন নেশায় মত্ত হয়ে থাকে। তারা ভবিষ্যতের চিন্তা ভাবনা থেকে দূরেই যেন থাকে।

ধর্ষণ একটি কালচার হয়ে দাঁড়িয়েছে পশ্চিমবঙ্গে। ধর্ষন হচ্ছে কারা হচ্ছে ভারতীয় জনতা পার্টির ঘরে ঘরের মহিলারা ও ধর্ষণ করছে কারা তৃণমূলের হার্মাদ বাহিনি তথা মমতা ব্যানার্জির ভাইয়েরা। ২০২১ এ দু’শোর বেশি আসনে আমরা পশ্চিমবঙ্গে সরকার গঠন করবো এই অঙ্গীকারবদ্ধ আমরা।

আরও পড়ুন: ‘দলে থেকেই জল মাপছেন শুভেন্দু’: অধীর

এই সভায় উপস্থিত ছিলেন মহিলা মোর্চার রাজ্য নেতৃত্ব ও ভারতের জনতা পার্টির মথুরাপুর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি দীপঙ্কর জানা ও অন্যান্য জেলার নেতৃত্ব।

পাশাপাশি এইদিন দক্ষিণ ২৪ পরগনা কুলপি বিধানসভার অন্তর্গত একটি কর্মী বৈঠকে অগ্নিমিত্রা পলের হাত ধরে অন্যান্য দল ছেড়ে প্রায় ৫০০ জন বিজেপির পতাকা হাতে তুলে নেন।

এই দিন বিজেপির মথুরাপুর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি দীপঙ্কর জানা জানান দিনরাত এক করে ২০২১ এর নির্বাচনে আমরা মমতা ব্যানার্জির ও গণতান্ত্রিক সরকারকে উৎখাত করার জন্য অঙ্গীকারবদ্ধ হয়েছি।

ভারতীয় জনতা পার্টির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব পশ্চিমবঙ্গে পা রেখেছেন এবং পশ্চিমবঙ্গে পাখির চোখ করে আমরা কোমর বেঁধে আমার পরিবার বিজেপি পরিবার এই দৃষ্টিভঙ্গিতে বিশ্বাসী। আমাদের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে বহিরাগত উপেক্ষা দিচ্ছে।

মমতা ব্যানার্জিকে বলতে চাই যে ভারত বর্ষ কি পশ্চিম বাংলার বাইরে থাকি পশ্চিমবঙ্গ ভারতবর্ষের বাইরে? ৫০০ কোটি টাকা দিয়ে পিকে কে এনেছেন বিহার থেকে। তাহলে কি আমরা ধরে নিতে পারি আপনি বহিরাগত দালাল কিনে পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল চালাচ্ছেন।

আরও পড়ুন ::

Back to top button