রাজ্য

মৃতদেহ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিক্ষোভ, সুকান্ত মজুমদারের বিরুদ্ধে মামলা কালীঘাটে

Sukanta Majumdar : মৃতদেহ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিক্ষোভ, সুকান্ত মজুমদারের বিরুদ্ধে মামলা কালীঘাটে - West Bengal News 24

মগরাহাট পশ্চিমের বিজেপি (BJP) প্রার্থীর মৃতদেহ নিয়ে বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রীর (CM) বাড়ির কাছে গেরুয়া শিবিরের মিছিল। সামনে থেকে সেই কর্মসূচিতে নেতৃত্ব দেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদার (Sukanta Majumdar)। এই ঘটনার বিরুদ্ধে এবার স্বতঃপ্রণোদিত FIR দায়ের করল কালীঘাট থানা (Kalighat PS)। অভিযুক্তের তালিকায় সুকান্ত মজুমদার (Sukanta Majumdar)-সহ একাধিক বিজেপি (BJP) নেতার নাম রয়েছে।

জানা গিয়েছে, পথ অবরোধ এবং পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই বিষয়ে বিজেপি (BJP) নেতা সম্বিত পাত্র (Sambit Patra) বলেন, “তৃণমূলের হামলায় বিজেপি প্রার্থীর মৃত্যুর ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক। সেই ঘটনার প্রতিবাদ করায় বিজেপি (BJP) সভাপতির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এটা খুব খারাপ। অন্যায় কোনদিন জিততে পারে না”।

বিজেপি (BJP) সভাপতি সুকান্ত মজুমদার (Sukanta Majumdar) বলেন, “আমাকেও ধাক্কা মারা হয়েছে। ডিসি সাউথ ধাক্কা মেরেছেন। মামলা দিয়ে আমাদের আটকানো যাবে না। পুলিস এটা ভেবে থাকলে মূর্খের স্বর্গে বাস করছে। বিজেপির বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে পুলিস মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের সরকারকে বাঁচাতে পারবে না।”

আরও পড়ুন : এবার তৃণমূলের পথে হলদিয়ার বিজেপি বিধায়ক তাপসী মণ্ডল? জোর জল্পনা

তৃণমূলতে নিশানা করে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, “যেকোনও মৃত্যু দুঃখজনক। কিন্তু লাশ নিয়ে রাজনীতি করা ঠিক নয়। বিজেপি যদি মনে করে লাশ নিয়ে ভবানীপুরে চলে আসবে। আর ভোটে জিতে যাবে তাহলে মূর্খের স্বর্গে বাস করছে।”

বিধানসভা ভোটের পর দুষ্কৃতীদের দ্বারা আক্রান্ত হন মগরাহাট পশ্চিমের বিজেপি প্রার্থী মানস সাহা। তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বিজেপি। ঠাকুরপুকুরের বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন বিজেপি প্রার্থী। সম্প্রতি মারা যান। বৃহস্পতিবার তাঁর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় মুরলিধর সেন লেনে বিজেপির রাজ্য কার্যালয়ে।

আরও পড়ুন : ফের তৈরি হচ্ছে গভীর নিম্নচাপ! শনিবার রাত থেকেই নামবে বৃষ্টি

সেখান থেকে মৃতদেহবাহী শকট নিয়ে ক্যাওড়াতলা শ্মশানের উদ্দেশে যাত্রা করেন বিজেপি নেতা-কর্মীরা। আচমকাই কালীঘাটে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে গিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তাঁরা। তখন ঘটনাস্থলে ছিলেন ভবানীপুরের বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল (Priyanka Tibrewal), বারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং (Arjun Singh) ও নতুন রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার (Sukanta Majumdar)। সুকান্ত শববাহী গাড়ির সামনে বসে অবস্থান বিক্ষোভের চেষ্টা করেন তাঁরা। যা বিরত করে পুলিস।

সূত্রঃ ২৪ ঘন্টা

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button