জাতীয়

শিশুটির নাম বর্ডার! নাম রাখলেন পাক দম্পতি

শিশুটির নাম বর্ডার। বর্ডার আবার কারও নাম হয় নাকি? হয়তো হয়। কারণ শেক্সপিয়র বলেছেন, whats in a name বা নামে কী আসে যায়। ঘটনা জানতে হলে যেতে হবে ভারত-পাক সীমান্তের আটারি ওয়াঘা বর্ডারে। এই সীমান্তেই জন্ম নিল এক শিশু। পাক দম্পতি সদ্য়োজাতের নাম রাখলেন বর্ডার।

ওয়াঘা-আটারি বর্ডার বলতে প্রথমেই যে ছবি সামনে আসে, তা হল ভারত ও পাকিস্তান সেনাবাহিনীর জমজমাট বিটিং রিট্রিট। সেলুলয়েডের পর্দায় ‘রিফিউজি’র কথা মনে আছে? ভারত-পাক সীমান্তে করিনার সন্তানের জন্ম হয়েছিল! আর এবার সেলুলয়েডের সেই গল্পের ছবি ফুটে উঠল বাস্তবের মাটিতে।

সংবাদ সূত্রে খবর, পাকিস্তানি দম্পতি পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রান্তের রাজনপুর জেলার বাসিন্দা। নিম্বু বাঈ ও বলম রাম অন্য় বেশ কয়েকজন পাকিস্তানি নাগরিকের সঙ্গে আটকে আছেন আটারি ওয়াঘা সীমান্তে। ভারত দর্শনে এসেছিলেন তাঁরা।

আরও পড়ুন: ভারত ও রাশিয়া,দুই দেশের মধ্যে রেকর্ড ২৮টি চুক্তি

এখন তাঁদের নিজের দেশ পাকিস্তানে ফিরে যাবার পালা। কিন্তু কিছু জরুরি তথ্য় বা প্রমাণপত্রের অভাবে সীমান্তে ফেঁসে গেছেন তাঁরা। এই সীমান্তই এখন তাঁদের ঘর গৃহস্থালির অস্থায়ী ঠিকানা। সীমান্তে অন্তঃরাষ্ট্রীয় চেকপোস্টের পাশে এখন আছেন তাঁরা।

চলতি মাসের ২ ডিসেম্বর নিম্বু বাঈয়ের প্রসব যন্ত্রণা অনুভূত হয়। প্রসূতিকে সাহায্য় করতে এগিয়ে আসেন আশপাশের কিছু মহিলা। তারপরই নিম্বু বাঈ সন্তান প্রসব করেন।

কিন্তু সীমান্তে জন্ম কেন? এখন প্রশ্ন আসছে, গোটা দেশ থাকতে শেষে সীমান্তে কেন জন্ম দিতে হল নিম্বু বাঈকে। বলম রাম জানিয়েছেন, তিনি তাঁর স্ত্রী ও সেইসঙ্গে আরও ৯৮ জন পাকিস্তানের নাগরিক আটকে আছেন আটারি বর্ডারে।

তীর্থভ্রমণ ও নিজেদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে লকডাউনের আগেই তাঁরা এসেছিলেন এদেশে। কিন্তু এরপর লকডাউন শুরু হয়ে যায়। পাশাপাশি তাঁদের সঙ্গে আনা নথিপত্রে কিছু ভুল থাকায় আটারি বর্ডারেই অস্থায়ী তাঁবুতে গত ৭১ দিন ধরে রয়েছেন তাঁরা। ফলে প্রসূতি নিম্বু বাঈ সীমান্তেই সন্তানের জন্ম দিলেন।

পাক নাগরিকদের অনুরোধ, যাতে তাঁদের নিজের দেশে ফিরে যাওয়ার ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়। সূত্রের খবর, আশেপাশের গ্রামে বসবাসকারী পরিবারগুলি আটারি বর্ডারে আটকে থাকা পাক-নাগরিকদের জন্য তিনবেলার খাবার ও প্রয়োজনীয় পথ্যসামগ্রী দিয়ে সাহায্য করছেন।

 

 

সুত্র: কলকাতা নিউজ

আরও পড়ুন ::

Back to top button