ওপার বাংলা

মোবাইলে ব্যস্ত নার্স দিলেন ৪ ডোজ টিকা, হাসপাতালে ভর্তি ৮ম শ্রেণির ছাত্রী

নেত্রকোণার মদনে মোবাইলে কথা বলতে বলতে এক শিক্ষার্থীকে একসাথে ৪ ডোজ ভ্যাকসিন দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে এক নার্সের বিরুদ্ধে। শনিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে মদন উপজেলা হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি জানাজানি হলে, অভিযুক্ত নার্সকে কৌশলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সরিয়ে নিয়েছে বলে দাবি ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর স্বজনদের।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী আদিবা বিনতে আজিজ (১৪) মদন শহীদ স্মরণিকা পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী। সে পৌরসভার মাহমুদপুর গ্রামের আজিজুল হকের মেয়ে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ও তার পরিবার সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সকাল থেকে মদন হাসপাতালে শিক্ষার্থীদের টিকা দান কার্যক্রম শুরু হয়। বেলা সাড়ে দশটার দিকে শিক্ষার্থী আবিদা বিনতে আজিজ টিকা নিতে মদন হাসপাতালে প্রবেশ করেন। টিকাদান কার্যক্রমের দায়িত্বে থাকা এক নার্স মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে শিক্ষার্থী আবিদাকে পরপর ৪ ডোজ ভ্যাকসিন দিয়ে দেয়। পরে ওই শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়।

খবর পেয়ে শিক্ষার্থীর মা ও স্বজনরা হাসপাতালে আসার আগেই অভিযুক্ত নার্সকে সরিয়ে নেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীর মা রাজিয়া সুলতানা বলেন, আমার মেয়েকে পরপর ৪ ডোজ ভ্যাকসিন দেয়া হয়েছে। এতে আমার মেয়ে কিছুটা অসুস্থ হয়ে পড়েছে। বিষয়টি হাসপাতালের চিকিৎসক রিফাত সাঈদকে জানাতে গেলে, তিনি আমার সাথে উল্টো খারাপ আচরণ করেন। বর্তমানে আমি আমার মেয়েকে নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছি।

দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক রিফাত সাঈদ বলেন, কোনো নার্স শিক্ষার্থীকে ৪ ডোজ ভ্যাকসিন দিয়েছে তাকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। এ নিয়ে শিক্ষার্থীর স্বজনদের সাথে কথা হয়েছে। কোনো রকম খারাপ আচরণ করা হয়নি বলে দাবি তার।

এ ব্যাপারে মদন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হুমায়ুন কবীর জানান, বিষয়টি নিয়ে ওই শিক্ষার্থী ও তার স্বজনদের সাথে আমি কথা বলেছি। তাকে হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। মনোযোগী হয়ে টিকা দিতে সকল নার্সদের সর্তক করেছি। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হবে বলে জানান তারা।

সূত্র : নতুন সময়

আরও পড়ুন ::

Back to top button