রাজ্য

গ্রেফতার রাজ্যের মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়!

গতকাল দিনভর তাঁর বাড়িতে তল্লাশি চালায় ED। তদন্তকারী সংস্থা সূত্রে খবর, তদন্তে সহযোগিতা করছিলেন না তিনি। শনিবার সকালে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। গতকাল থেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এদিন সকালে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তাঁকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে CGO কমপ্লেক্সে। বর্তমানে তাঁকে নিয়ে নাকতলার বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়েছেন আধিকারিকরা। তাঁকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে CGO কমপ্লেক্সে। জানা গিয়েছে, এদিনই আদালতে তোলা হবে তাঁকে। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের আইনজীবী অবশ্য বলেন, “এখনও পর্যন্ত কোনও কাগজপত্র দেখানো হয়নি। আমরা CGO কমপ্লেক্সে যাচ্ছি।”

ED সূত্রে খবর, একাধিক প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে যাচ্ছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। জানা যাচ্ছে , আজই আদালতে তোলা হতে পারে রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রীকে।

২৪ ঘণ্টা অর্থাৎ একদিনেরও বেশি সময় ধরে তাঁর নাকতলার বাড়িতেই ছিলেন ED-র আধিকারিকরা। শিক্ষক নিয়োগে অনিয়ম নিয়েও তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ চলাকালীন অসুস্থতা বোধ করেন তিনি। সূত্রের খবর, SSKM-এর চিকিৎসকদের নিয়ে একটি মেডিক্যাল বোর্ডও গঠন করা হয়।

বাড়িতেই তাঁর চিকিৎসা চলছিল বলে জানা যায়। অন্যদিকে, অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে ২১ কোটি টাকা। জানা গিয়েছে, অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কেও আটক করা হয়েছে। অর্পিতার সঙ্গে পার্থর কোনও যোগাযোগ রয়েছে কিনা, সেই বিষয়টিও নজরে রেখেছেন তদন্তকারীরা।

জানা গিয়েছে, অর্পিতা মুখোপাধ্যায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ‘ঘনিষ্ঠ’। অর্পিতার বাড়ি থেকে দুটি বস্তায় ভরা দুই হাজার এবং পাঁচশো টাকার নোট উদ্ধার হয়েছে।

যদিও গতকালই একটি টুইটে কুণাল ঘোষ স্পষ্ট জানিয়েছিলেন, “ইডি যে টাকা উদ্ধার করেছে, তার সঙ্গে তৃণমূলের কোনও সম্পর্ক নেই। এই তদন্তে যাদের নাম আসছে, এই সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাব দেওয়ার দায়িত্ব তাঁদের বা তাঁদের আইনজীবীদের। কেন দলের নাম জড়িয়ে প্রচার চলছে, দল নজর রাখছে। যথাসময়ে বক্তব্য জানাবে।”

উল্লেখ্য, SSC নিয়োগ নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। গতকাল এই মামলায় রাজ্যের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীর বাড়িতেও তল্লাশি চালায় পুলিশ। তিনি সেই সময় কলকাতায় ছিলেন। পরে তিনি জানিয়েছেন, কলকাতায় থাকায় জন্য বাড়িতে কি চলছে সেই বিষয়ে নির্দিষ্ট করে কিছু তিনি জানেন না।

 

আরও পড়ুন ::

Back to top button