জানা-অজানা

সন্তানের যে নাম রাখলে মা-বাবার জেল পর্যন্ত হতে পারে!

সন্তান জন্মের পর যে বিষয়টি সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ণ তা হলো নাম নির্ধারণ। যদিও অনেকে তা আগে থেকেই করে রাখেন। সন্তানের জন্য কী নাম রাখা হবে তা নিয়ে পরিবারের লোকজন নানা চিন্তা-ভাবনা শুরু করে দেন। অনেক বাবা-মা বিদেশি নাম রাখতে পছন্দ করেন, কেউ আবার বাংলা অভিধান দেখে নামকরণ করেন। তবে এমন কিছু কিছু নাম রয়েছে যেগুলো রাখা বেআইনি।

বিভিন্ন দেশে কিছু নাম নিষিদ্ধ করা রয়েছে, যা রাখলে পিতা-মাতার হাজতবাস পর্যন্ত হতে পারে। আধুনিক বা ট্রেন্ড বজায় রেখে নাম রাখা এখন আজকালকার দিনে ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে সব নাম সব জায়গায় রাখা যায় না। এমন অনেক নাম রয়েছে, যেগুলো বিশ্বের অনেক দেশেই নিষিদ্ধ। আপনি যদি বাচ্চার জন্য এই নামগুলো রাখেন তাহলে বেশ মোটা অঙ্কের জরিমানা হতে পারে, এমনকি জেল পর্যন্ত হতে পারে।

তাই নামকরণ করার আগে জেনে নেওয়া ভালো কোন নামগুলো কোন কোন দেশে একেবারেই নিষিদ্ধ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

চলুন দেখে নেওয়া যাক সেই তালিকা
অ্যাডলফ, অ্যাডলফ হিটলার! এই নামটি শুনলেই কিন্তু অত্যাচারী এক শাসকের কথা মনে আসে। জার্মানিতে আজও কোনও শিশুর নাম অ্যাডলফ রাখা যায় না, এই দেশে এই নামটি নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। জার্মানি ছাড়াও মালয়েশিয়া, মেক্সিকো এবং নিউ জিল্যান্ডেও এই নামটি নিষিদ্ধ তালিকায় রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন :: ব্যাগের নাম ও ধরণ অনুযায়ী ব্যবহার

আকুমা, জাপানে এই নামটি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এই নামটি জাপানে অবৈধ হিসেবে ধরা হয়। এই দেশের স্থানীয় ভাষায় এর অর্থ শয়তান। তাই জাপান এটি নিষিদ্ধ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

অ্যানাল, এই শব্দটি আমাদের শরীরে গোপন অঙ্গের সঙ্গে যুক্ত। তাই এই নামটি শিশুর নাম হিসেবে কখনই রাখা যায় না। ডেনমার্ক ও নিউজিল্যান্ডে এই নামটি নিষিদ্ধ হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

সায়নাইড, এই নামটির অর্থ বিষ। তাই ইউনাইটেড কিংডমে সায়নাইড নিষিদ্ধ নাম। কোনও শিশুর নাম আপনি সায়নাইড রাখতে পারবেন না।

এনরিক অনেক শিশুর নামই থাকে, কিন্তু আয়ারল্যান্ডে এই নামকে নিষিদ্ধ নামের তালিকায় রাখা হয়েছে। আসলে আয়ারল্যান্ডে কোনও বিদেশি নামই সন্তানের জন্য রাখা যায় না। এনরিক বিদেশি শব্দ হওয়ায় সেখানকার শিশুদের জন্য এনরিক নাম ব্যবহার বেআইনি।

সূত্রঃ এই সময়

আরও পড়ুন ::

Back to top button