বর্ধমান

অন্তঃসত্ত্বার পেটে লাথি! গর্ভস্থ ভ্রূণ নষ্টে অভিযুক্ত তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি

অন্তঃসত্ত্বার পেটে লাথি! গর্ভস্থ ভ্রূণ নষ্টে অভিযুক্ত তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: পারিবারিক বিবাদের মধ্যে নাক গলিয়ে এক মহিলা ও তাঁর অন্তঃসত্ত্বা মেয়েকে মারধরের অভিযোগ উঠল তৃণমূলের এক অঞ্চল সভাপতির বিরুদ্ধে। এমনকী ওই অন্তঃসত্ত্বা মহিলার পেটে লাথি মারার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে। সোমবার ঘটনাটি ঘটেছে বর্ধমান-১ ব্লকের রায়ান-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের হটুদেওয়ান ডাঙাপাড়া এলাকায়। ওই মহিলা রাকিয়া বিবি ও তাঁর অন্তঃসত্ত্বা মেয়ে সালু বিবিকে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভরতি করা হয়। সালুর গর্ভস্থ সন্তান নষ্ট হয়ে গিয়েছে বলে দাবি পরিজনদের। তাঁদের অভিযোগ, তৃণমূল (TMC) অঞ্চল সভাপতি জামাল শেখের বিরুদ্ধে। যদিও জামালের দাবি, ঘটনার সময় তিনি ছিলেনই না।

জখমরা স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য রূপা বিবির আত্মীয়। রবিবার রাতে রূপার আত্মীয়দের মধ্যে পারিবারিক বিবাদ বাঁধে। তাতে জামাল শেখেরও নাম জড়ায়। পরে স্থানীয়দের মাধ্যমে সেই বিবাদ তখনকার মতো মিটে যায়। সোমবার সকালে ফের বিবাদ বাঁধে। অভিযোগ, সেই সময় ফের জামাল শেখ তাঁর স্ত্রী-সহ রাকিয়াদের বাড়িতে আসে। বলতে থাকে, নিজেদের পারিবারিক বিবাদে কেন জামালের নাম করা হচ্ছে। এই নিয়ে তর্কাতর্কি হওয়ার পর আচমকাই রাকিয়া ও সালুকে ব্যাপক মারধর শুরু করা হয় বলে অভিযোগ। জামাল সালুর পেটে লাথি মারে বলে অভিয়োগ। তাঁর রক্তপাত শুরু হয়ে যায়।

আরও পড়ুন : তৃণমূল কর্মীদের জুতোপেটা করা উচিত: দিলীপ ঘোষ

সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের দুইজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। রূপা বিবি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, দলেরই অঞ্চল সভাপতি তাঁর আত্মীয়দের উপর অকথ্য অত্যাচার করেছে। পেটে লাথি মেরে গর্ভস্থ সন্তান নষ্ট করে দিয়েছে। ঘটনার বিষয়ে বর্ধমান থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। যদিও জামাল শেখ দাবি করেছেন তাঁর নামে মিথ্যে অভিযোগ করা হচ্ছে। ঘটনার সময় তিনি এলাকাতেই ছিলেন না। তবে ওদের পারিবারিক বিবাদের সময় তাঁর স্ত্রী অশান্তিতে জড়িয়েছিলেন। কিন্তু কেউ লাথি মারেনি।

সুত্র : সংবাদ প্রতিদিন

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button