বীরভূম

অগ্রণী সমাজ সঠিক উপায় করে আনছে মা দুগ্গা কে

প্রতিবেদকের তোলা ছবি

রানা বৈদ্য, সাঁইথিয়া: ধবধবে সাদা মেঘ আর ঝলমলে রোদের খেলায় আকাশে মাঝে মাঝেই ফুটে উঠছে মা দুগ্গার মায়াময় মুখখানা । দেরি করে ঘুম থেকে ওঠা ছেলেটাও নাড়ুর গন্ধে সকালবেলা উঠে সকলকে তাক লাগিয়ে দিচ্ছে ।

টেঁপি দুবেলা মুখে হলুদ চন্দন লাগিয়ে ঘরময় ঘুরে বেড়াচ্ছে । হাওয়া বলে দিচ্ছে গন্ধে গন্ধে “দিন গোনার পালা শেষ”। সবই একরকম , শুধু এই মহামারী টা কেমন যেন বেখাপ্পা ।

কিন্তু মা দুগ্গা ঠিক উপায় করে দিল । এ বছর ৫২ তম দুর্গাপুজো বলে কথা। অগ্রণী সমাজ সঠিক উপায় করে আনছে মা দুগ্গা কে। দুর্গাপুজো আর বঙ্গদেশের সম্পর্কের মাঝে এই মহামারী সর্ববৃহৎ বাধা । আর এই বাধার উপরেই উদ্ধারকারী সেতুর ভূমিকা নিয়েছে অগ্রণী সমাজের থিম – “জল ধরো জল ভরো”।

আরও পড়ুন: সরিষাদিঘীর সন্নিকটে মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনা মৃত্যু এক

আজকের দিনে জলের এই চূড়ান্ত অনটনের সময় মানুষকে সচেতন করার উপায় হিসেবে অগ্রণী সমাজ বেছে নিয়েছে এই থিম । আবার একই সাথে মহামারী এড়াতেও এই থিম যেন সমানভাবে প্রাসঙ্গিক ।

ছাতার ব্যবহারের মাধ্যমে না চাইতেই হয়ে যায় চার ফিটের শারীরিক দূরত্ব । ছাতা যেন এই মহামারীর পৃথিবীতে সুস্থতার প্রতীক , ঠিক যেমন মা দুগ্গা সব অশান্তি বিনাশের পরে শান্তির প্রতীক । বাকিটা জানতে আসতে হবে অগ্রণী সমাজ । ভয় নেই , মা দুগ্গা অসুরের সাথে সাথে মহামারীও বিনাশ করবেই ।

 

আরও পড়ুন ::

Back to top button